• শুক্রবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||

  • আশ্বিন ৩ ১৪২৭

  • || ০১ সফর ১৪৪২

দৈনিক গোপালগঞ্জ
৯২

অবাধ্য সন্তান বাধ্য করাসহ জরুরি কিছু দোয়া

দৈনিক গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ১৮ আগস্ট ২০২০  

পবিত্র কোরআন-হাদিসের কিছু জরুরি দোয়া নিজে জানুন এবং অন্যকে জানান। এতে আপনার আমার তথা সবারই মঙ্গল হবে ইনশাআল্লাহ!

 (১) কোরআন তেলাওয়াতের শুরুতে, সালাতে শয়তান ওয়াসওসা (কুমন্ত্রণা) দিলে, রাগের সময়, খারাপ স্বপ্ন দেখলে এবং মনের মধ্যে শয়তান কুমন্ত্রনা দিলে পড়ুন: ‘আউযুবিল্লাহি মিনাশ শাইতানির রাজীম।’

অর্থ: বিতাড়িত শয়তান থেকে আল্লাহর নিকট আশ্রয় প্রার্থনা করছি।

(২) পবিত্র কোরআন শরিফের ১১৪টি সূরার মধ্যে সূরা তওবা ব্যতিরেকে অন্য বাকি ১১৩টি সূরা শুরু করা হয়েছে ‘বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম’ দিয়ে। এছাড়া হাদিস থেকে জানা যায়, রাসূলুল্লাহ (সা.) প্রতিটি কাজ শুরু করার আগে ‘বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম’ বলতেন। অতএব, যেকোনো কাজের শুরুতে পড়ুন: ‘বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম।’ 

অর্থ: পরম করুনাময় অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে আরম্ভ করছি। 

(৩) ইহকালীন ও পরকালীন যাবতীয় সুখ-শান্তির জন্য পড়ুন: রাব্বানা আ’তিনা ফিদ্দুনিয়া হাছানাতাঁও ওয়াফিল আখিরাতি হাছানাতাঁও ওয়াক্বিনা আজাবান্নার। 

অর্থ: হে আল্লাহ! তুমি আমাকে ইহকালীন যাবতীয় সুখ-শান্তি ও পরকালীন যাবতীয় সুখ-শান্তি প্রদান কর। আর দোজখের আগুন থেকে আমাকে রক্ষা কর।

(৪) মাতা-পিতার জন্য সন্তানের দোয়া: রাব্বির হামহুমা কামা রাব্বা ঈয়ানী সাগিরা। (সূরা: বণী ইসরাইল, আয়াত: ২৩-২৫)। 

অর্থ: হে আল্লাহ! আমার মাতা-পিতার প্রতি আপনি সেই ভাবে সদয় হউন, তারা শৈশবে আমাকে যেমন স্নেহ-মমতা দিয়ে লালন-পালন করেছেন।

(৫) ঈমানের সঙ্গে মৃত্যু বরণ করার দোয়া: রাব্বানা লা’তুযিগ কুলুবানা বা’দা ইয হাদাইতানা ওয়া হাবলানা মিল্লাদুনকা রাহমাতান, ইন্নাকা আনতাল ওয়াহাব। (সূরা: আলে ইমরান, আয়াত: ০৮)। 

অর্থ: হে আমাদের পালনকর্তা! সরলপথ প্রদর্শনের পর তুমি আমাদের অন্তরকে বক্র করে দিওনা এবং তুমি আমাদের প্রতি করুনা কর, তুমিই মহান দাতা।

(৬) ভুল করে ফেললে ক্ষমা চাওয়ার দোয়া: রাব্বাবা যালামনা আনফুসানা ওয়া ইল্লাম তাগফির্লানা ওয়াতার হামনা লানা কুনান্না মিনাল খা’সিরিন।

অর্থ: হে আল্লাহ! আমি আমার নিজের ওপর জুলুম করে ফেলেছি। এখন তুমি যদি ক্ষমা ও রহম না কর, তাহলে আমি ধ্বংস হয়ে যাব।

(৭) গুনাহ মাফের দোয়া: রাব্বানা ফাগফিরলানা যুনুবানা ওয়া কাফফির আন্না সাইয়্যিআতিনা ওয়া তাওয়াফ্ফানা মায়াল আবরার। (সূরা: আলে ইমরান, আয়াত: ১৯৩)। 

অর্থ: হে আমাদের পালনকর্তা, আমাদের গুনাহসমূহ মাফ করে দাও, আমাদের থেকে সকল মন্দ দূর করে দাও এবং আমাদের নেক লোকদের সাহচার্য দান কর।

(৮) স্বামী-স্ত্রী-সন্তানদের জন্য দোয়া: রাব্বানা হাবলানা মিন আযওয়াজিনা ওয়া যুররিইয়াতিনা কুররাতা আইইনিও ওয়াজ আলনা লিল মুত্তাক্বিনা ইমামা। (সূরা: আল ফুরকান, আয়াত: ৭৪)। 

অর্থ: হে আমাদের পালনকর্তা, আমাদিগকে আমাদের স্ত্রী ও সন্তান-সন্ততিগণহতে নয়নের তৃপ্তি দান কর এবং আমাদেরকে মুত্তাকীদের নেতা বানাও।

(৯) ঈমান ঠিক রাখার আমল: ইয়া মুক্বাল্লিবাল কুলুবি ছাব্বিত ক্বালবি আলা দ্বীনিকা। 

অর্থ: হে মনের গতি পরিবর্তনকারী, আমার মনকে সত্য দ্বীনের ওপর স্থিত কর।

(১০) সন্তানদের প্রতি মাতা-পিতার দোয়া ও মাতা-পিতার জন্য সন্তানদের দোয়া: রাব্বিজ আলনী মুকিমাছ ছালাতি ওয়ামিন জুররি ইয়াতি, রাব্বানা ওয়াতাকাব্বাল দুয়া, রাব্বানাগ ফিরলি ওয়ালি ওয়ালি দাইয়া ওয়ালিল মু’মিনিনা ইয়াওয়া ইয়াকুমুল হিসাব। (সূরা: ইব্রাহিম, আয়াত: ৪০-৪১)। 

অর্থ: হে আমার পালনকর্তা, আমাকে নামাজ কায়েমকারী বানাও আর আমার সন্তানদের মধ্য থেকেও। হে আল্লাহ আমার দোয়া কবুল করে নাও। হে আল্লাহ আমাকে ও আমার মাতা-পিতাকে আর সব ঈমানদার লোকদের সেদিন ক্ষমা করে দিও, যেদিন হিসাব কার্যকর হবে।

(১১) নেক সন্তানদের জন্য দোয়া: রাব্বি হাবলি মিনাস সালেহীন। 

অর্থ: হে আমার পালনকর্তা, আমাকে নেককার সৎ-কর্মশীল সন্তান দান কর।

(১২) অবাধ্য সন্তান বাধ্য করার দোয়া: ওয়াছলিহলি ফী যুররিইয়াতি, ইন্নি তুবতু ইলাইকা, ওয়া ইন্নি মিনাল মুসলিমীন। (সূরা: আহকাফ, আয়াত: ১৫)।

অর্থ: আমার জন্য আমার সন্তানদের মধ্যে প্রীতি দান কর, অবশ্যই আমি তোমারই দিকে ফিরিতেছি এবং অবশ্যই আমি মুসলমানদের অন্তর্ভূক্ত।

(১৩) সব মুসলমানদের জন্য দোয়া: আল্লাহুম্মাগ ফিরলী ওয়ালিল মু’মিনিনা ওয়াল মু’মিনাতি, ওয়াল মুসলিমিনা ওয়াল মুসলিমাতি। 
অর্থ: হে আল্লাহ তুমি আমার ও সমস্ত মু’মিন নর-নারীর এবং সমস্ত মুসলমান পুরুষ ও স্ত্রীলোকের পাপ সমূহ মোচন করে দাও।

(১৪) কাফেরদের বিরুদ্ধে বিজয়ী হওয়ার দোয়া: রাব্বানাগ ফিরলানা যুনুবানা ওয়া ইসরাফানা ফী আমরিনা ওয়া ছাব্বিত আক্কদামানা ওয়ানছুরনা আলাল কাওমিল ক্বাফিরীন। (সূরা: আলে ইমরান, আয়াত: ১৪৭)।

অর্থ: হে আমাদের পালনকর্তা! আমাদের গুনাহ এবং কোনো কাজের সীমা লঙ্ঘনকে তুমি ক্ষমা কর, আমাদের ঈমান দৃঢ় রাখ এবং কাফেরদের বিরুদ্ধে আমাদের বিজয়ী কর।

(১৫) ক্ষমা ও রহমতের দোয়া: রাব্বিগ ফির ওয়ারহাম ওয়া আ নতা খাইরুর রাহিমীন।

অর্থ: হে আল্লাহ! আমাকে ক্ষমা করে দাও, আর আমার প্রতি রহম কর, তুমিই তো উত্তম দয়ালু।

শুদ্ধ উচ্চারণের জন্য কোরআনের আয়াতগুলা দেখে নেয়ার অনুরোধ রইলো।

দৈনিক গোপালগঞ্জ
দৈনিক গোপালগঞ্জ
ধর্ম বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর