• রোববার   ২৯ মার্চ ২০২০ ||

  • চৈত্র ১৫ ১৪২৬

  • || ০৪ শা'বান ১৪৪১

দৈনিক গোপালগঞ্জ
সর্বশেষ:
মিরপুর বাউনিয়াবাঁধ বস্তিতে আগুনে ৩ জনের মৃত্যু ২৭তম স্প্যানে পদ্মা সেতুর চার কিলোমিটারের বেশি দৃশ্যমান করোনায় নতুন করে কেউ আক্রান্ত হয়নি, সুস্থ আরও ৪ জন টাঙ্গাইলে সিমেন্টভর্তি ট্রাক উল্টে নিহত বেড়ে ৬
১০১৫

ঢাকা সিটি নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি কম হওয়ার তিন কারণ

দৈনিক গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ১ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

ঢাকা সিটি নির্বাচনকে ঘিরে শুরু থেকেই সব দলের প্রার্থীরা দলীয় কর্মীদের নিয়ে উৎসব মুখর পরিবেশে প্রচারণা চালিয়েছে। এমনকি প্রচারণার শেষ মূহুর্ত পর্যন্ত প্রার্থীদের মাঝে উৎসাহ উদ্দীপনার কমতি ছিল না। তবে এ ভোটকে কেন্দ্র করে শুরু থেকে বিএনপি নেতাদের মাঝে আন্দোলন ও সন্ত্রাসী মনোভাব পরিলক্ষিত হয়েছে। ভোটের মাঠে তারা নানা রকম ভয় ভীতি ছড়িয়েছে। বিএনপির দলীয় প্রার্থীরা ভোটের প্রচারণায় যেমন আতঙ্ক ছড়িয়েছেন তেমনি তাদের দলের নীতিনির্ধারকরা গণমাধ্যমের সামনেও সমানতালে আতঙ্ক ছড়িয়েছেন। তারা কেউ বলেছেন এ ভোটকে তারা আন্দোলনের ক্ষেত্র হিসেবে নিয়েছেন, কেউ বলেছেন কেন্দ্রে কেন্দ্রে সন্ত্রাসী ভাড়া করে পাহারা বসাবেন। আবার কেউ বলেছেন ভোট কেন্দ্র দখল করা হবে। 

নির্বাচন বিশ্লেষকরা মনে করেন, বিএনপির নেতিবাচক মনোভাব ও আতঙ্ক ছড়ানো ভোটারদের মাঝে ভোটকেন্দ্রে যেতে অনাগ্রহ তৈরী করেছে। অন্যদিকে স্থানীয় এ ভোটকে ঘিরে কুটনৈতিক তৎপরতা ও বহিরাগত সন্ত্রাসীদের ভীতি ছড়ানো নগরীর ভোটারদের নিরুৎসাহিত করেছে। 

ভোটার উপস্থিতি কম হওয়ায় আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী শেখ ফজলে নূর তাপস হতাশা প্রকাশ করেছেন। শনিবার বিকালে ভোটকেন্দ্র পরিদর্শন শেষে গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে তিনি বলেন, যে পরিমাণ ভোটার ভোটকেন্দ্রে উপস্থিত হবে বলে ধারণা করেছিলাম, সে পরিমাণ ভোটার ভোটকেন্দ্রে আসেনি। এর প্রধান কারণ বিএনপি আগে থেকেই ভোটারদের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়েছে। 

অন্যদিকে ভোটার উপস্থিতি কম হওয়া কারণ জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক। তিনি বলেন, ভোটের আগের দিন বিদেশি কূটনীতিক মিশনগুলোর বিবৃতি ও তাদের আচরণ মানুষকে ভাবিয়ে তুলেছে, যে কারনে সকালে মানুষ ভোটকেন্দ্রে যেতে দ্বিধা করেছে। তবে পরে তারা যখন খবর পান যে ভোট সুষ্ঠুভাবে পরিচালিত হচ্ছে, তখন তারা আস্তে আস্তে ভোটকেন্দ্রে আসতে শুরু করেছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

এ দিকে শনিবার সকাল ৮ টা থেকে রাজধানীর দুই সিটিতে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে তা শেষ হয় বিকাল ৪টায়। ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ২ হাজার ৪৬৮টি কেন্দ্রে ৫৪ লাখ ৬৩ হাজার ৪৬৭জন ভোটারের ভোট দেওয়ার কথা থাকলেও ভোট কেন্দ্রে উপস্থিতি কম দেখা গেছে।

দৈনিক গোপালগঞ্জ
দৈনিক গোপালগঞ্জ
জাতীয় বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর