• শুক্রবার   ২৯ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৫ ১৪২৭

  • || ০৬ শাওয়াল ১৪৪১

দৈনিক গোপালগঞ্জ
১১৫২

ফিরে দেখা : ১১ বছরে ভূমি ব্যবস্থাপনা উন্নয়নে সরকারের সফলতা

দৈনিক গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ৩০ ডিসেম্বর ২০১৯  

বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দক্ষ নেতৃত্বে দেশ আজ উন্নয়নের মহাসড়কে। রুপকল্প ২০২১ এবং একশ’ বছরের ডেল্টা প্লানকে সামনে রেখে দূর্বার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ। উন্নয়নের মহান রুপকার, গণতন্ত্রের মানসকন্যা শেখ হাসিনার দূরদর্শী চিন্তাধারা ও যুগোপযোগী বিভিন্ন পদক্ষেপের কারণে দেশ থেকে দূর হয়েছে ক্ষুধা-দারিদ্র্য-বেকারত্ব। শিক্ষা, কৃষি, শিল্প, ভৌত অবকাঠামো নির্মাণ, নারীর ক্ষমতায়ন, সামাজিক নিরাপত্তা, স্বাধীন বিচার ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠাসহ দেশের প্রতিটি সেক্টরে হয়েছে অভূতপূর্ব উন্নয়ন। বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল। বর্তমান সরকারের উন্নয়ন নিয়ে আমাদের ধারাবাহিক পরিবেশনা ‘উন্নয়নের ১১ বছর’।


প্রধানমন্ত্রীর  ‘সবার জন্য বাসস্থান’ যোগানোর প্রতিশ্রæতি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বর্তমান সরকারের গুচ্ছগ্রাম প্রকল্পের মাধ্যমে ৫০ হাজার গৃহহীন ভূমিহীন পরিবারকে পুনর্বাসন করার লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে। গুচ্ছগ্রাম (ক্লাইমেট ভিক্টিমস রিহ্যাবিলিটেশন) প্রকল্পের আওতায় বর্তমান সরকার ১৬ হাজার ১০৩টি গৃহহীন ভূমিহীন পরিবারের প্রতিটি পরিবারকে ৪-৮ শতক খাসজমির কবুলিয়াত দলিল ৩০০ বর্গফুটের দুই কক্ষবিশিষ্ট ঘর নলক‚প মাল্টিপারপাস হল আর্থসামাজিক উন্নয়নের জন্য আয়বর্ধক প্রশিক্ষণ ও ১৫ হাজার টাকা ক্ষুদ্রঋণ প্রদানসহ পুনর্বাসন করা হয়েছে। চলতি ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে ২৬ হাজার ভূমিহীন পরিবারকে পুনর্বাসনের লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে।
কৃষি খাস জমি বন্দোবস্ত নীতিমালা ১৯৯৭ এর আওতায় মাত্র ১ টাকা প্রতীকি মূল্যে ভূমিহীনদের সর্বোচ্চ ১ একর কৃষি খাস জমি বন্দোবস্ত প্রদান করা হয়। বর্তমান সরকারের সারাদেশে ২ লক্ষ ৩৮ হাজার ৩৮টি ভূমিহীন পরিবারকে ১ লক্ষ ১৬ হাজার ৩০৩ দশমিক ৪৩৪৮ একর কৃষি খাসজমি বন্দোবস্ত প্রদান। জানুয়ারি ২০০৯ হতে জুন ২০১৭ পর্যন্ত ১৫টি উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ। 
এরমধ্যে ৭টি প্রকল্প চলমান এবং ৮টি প্রকল্প সমাপ্ত। ডিজিটাল পদ্ধতিতে ভূমি জরিপ ও রেকর্ড প্রণয়ন এবং সংরক্ষণ কার্যক্রম চালু। সারাদেশের ভূমি জরিপ রেকর্ড প্রণয়ন ও ব্যবস্থাপনার জন্য ৫৫টি জেলায় সিএস এসএ ও আরএস জরিপের মোট ২ কোটি ৩২ লক্ষ ৫ হাজার ৭০৩টি খতিয়ানের ডাটা এন্ট্রি সম্পন্ন হয়েছে। ৩টি মধ্যম ক্ষমতা সম্পন্ন সার্ভার ২০টি কম্পিউটার এবং ৫০টি উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন লেজার প্রিন্টার সংগ্রহ। চর ডেভেলপমেন্ট এন্ড সেটেলমেন্ট প্রজেক্ট-৪ এর আওতায় নোয়াখালী জেলার হাতিয়া ও সুবর্ণচরে ১২ হাজার ৪৬১টি ভূমিহীন পরিবারের প্রতি পরিবারকে ১ থেকে ১.৫ একর করে প্রায় ২০ হাজার একর কৃষি খাস জমির খতিয়ান বিতরণ। ভূমি জোনিং কার্যক্রমের আওতায় ৪৭৮টি উপজেলার ‘ভূমি জোনিং প্রতিবেদন ও এওঝ ইধংবফ উরমরঃধষ খধহফ তড়হরহম গধঢ় প্রণয়ন করা হয়েছে। ৯৬টি উপজেলা ভূমি অফিস ও ২০৭টি ইউনিয়ন ভূমি অফিস নির্মাণ।

৩২০টি ইউনিয়ন ভূমি অফিস নির্মাণের কাজ সমাপ্ত। আরও ১০০০টি ইউনিয়ন ভূমি অফিস নির্মাণের লক্ষ্যে উন্নয়ন প্রকল্প চলমান। রাজধানীর কাটাবন এলাকায় ৫ তলা বিশিষ্ট ভূমি প্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের হোস্টেল ভবন নির্মাণ। ওই ভবনের ৬ তলা হতে ১২ তলা পর্যন্ত উর্ধ্বমুখী স¤প্রসারণের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। ভাষাণটেক পুনর্বাসন প্রকল্পের আওতায় সরকারি জমিতে ছিন্নমূল বস্তিবাসী ও নিম্নবিত্তদের জন্য নির্মিত বহুতল বিশিষ্ট ভবনে ২০১৬টি ফ্লাট নির্মিত। এর মধ্যে ৫৯৬ জন বস্তিবাসীসহ ১৭৯৪টি ফ্লাটে সুবিধাভোগীগণ বসবাস করছেন। ২৮ হাজার ৮৪৮ দশমিক ৯১ একর জমিসহ সর্বমোট ৩৫ হাজার ৫৩৫ দশমিক ৩০৬৬ একর অকৃষি খাসজমি ইতোমধ্যে বন্দোবস্ত প্রদান করা হয়েছে।
 

দৈনিক গোপালগঞ্জ
দৈনিক গোপালগঞ্জ
উন্নয়ন বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর