• বৃহস্পতিবার   ০২ এপ্রিল ২০২০ ||

  • চৈত্র ১৯ ১৪২৬

  • || ০৮ শা'বান ১৪৪১

দৈনিক গোপালগঞ্জ
সর্বশেষ:
বাংলাদেশে করোনায় মৃত্যু ৬, আক্রান্ত বেড়ে ৫৪ গার্মেন্টস বন্ধে সরকারের কোনো নির্দেশনা নেই : বাণিজ্যমন্ত্রী ময়মনসিংহের নান্দাইলে ট্রাকচাপায় দুই ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে
১২৭৪

বাংলাদেশের প্রথম পতাকা ওড়ানোর দিন আজ

দৈনিক গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ২ মার্চ ২০২০  

অগ্নিঝরা মার্চের দ্বিতীয় দিন আজ। ৭১ সালের এই দিনে ঢাকাসহ পুরো বাংলাদেশ জুড়ে তখন ভিন্ন উত্তাপ। চারদিকেই বিক্ষুব্ধ জনপদের প্রতিচ্ছবি। মার্চের এই দিনটিতেই ঢাকায় উড়েছিল মানচিত্র খচিত স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম পতাকা।

মার্চের প্রথম দিনে পাকিস্তানের শাসক ইয়াহিয়া খানের স্বৈরাচারী ঘোষণায় বাঙালী জাতির কাছে স্পষ্ট হয়ে গিয়েছিল যে, সংখ্যাগরিষ্ঠের প্রতিনিধিদের তারা ক্ষমতায় যেতে দিবে না। তাই স্বাধীনতার আন্দোলনই হচ্ছে অধিকার আদায়ের একমাত্র পথ।

২ মার্চ আন্দোলন উত্তাপে টগবগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে হাজার হাজার ছাত্র বটতলায় এসে জমায়েত হন। বটতলার সমাবেশে ইয়াহিয়ার স্বৈরাচারী ঘোষণার ধিক্কার জানানো হয় এবং উত্তোলন করা হয় স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা।

বটতলার ঐতিহাসিক সমাবেশে তৎকালীন ডাকসুর ভিপি আসম আবদুর রব স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকাটি উত্তোলন করেন। বঙ্গবন্ধুর নির্দেশেই সকাল ১১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলাভবন প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত স্বাধীন বাংলা কেন্দ্রীয় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের সভায় উত্তোলন করা হয় স্বাধীন বাংলার মানচিত্র খচিত পতাকা। পতাকা উত্তোলন অনুষ্ঠানে নেতৃত্ব প্রদান করেন ছাত্রলীগ সভাপতি নূরে আলম সিদ্দিকী, সাধারণ সম্পাদক শাজাহান সিরাজ, ডাকসু সহ-সভাপতি আ স ম আব্দুর রব এবং সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুস মাখন।

স্বাধীনতা সংগ্রামের ৯ মাস এই পতাকাই বিবেচিত হয়েছে আমাদের জাতীয় পতাকা হিসেবে।

পরে এ পতাকা নিয়ে স্লোগানে স্লোগানে মুখর হয়ে ওঠে রাজপথ। জাগো জাগো-বাঙালী জাগো, পদ্মা মেঘনা যমুনা-তোমার আমার ঠিকানা, স্বাধীন বাংলার জাতির পিতা- শেখ মুজিব শেখ মুজিব, বঙ্গবন্ধু এগিয়ে চলো- আমরা আছি তোমার সাথে। এমন হাজারো স্লোগান ধ্বনি ছড়িয়ে পড়ে বাতাসে বাতাসে।

স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা নিয়ে ছাত্র নেতৃবৃন্দের বিশাল একটি মিছিল বঙ্গবন্ধুর বাসভবনে সমবেত হয়।

অন্যদিকে এদিন পাকিস্তানী সেনাবাহিনীর গুলিতে ২ জন নাগরিক প্রাণ হারানোর সংবাদে বঙ্গবন্ধু তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে বিবৃতি দেন এবং ৩ মার্চ থেকে ৬ মার্চ পর্যন্ত সারা দেশে অর্ধদিবস হরতালের কর্মসূচী ঘোষণা করেন।

পাকিস্তানের সামরিক কর্তৃপক্ষ সান্ধ্য আইন জারি করলে জনতা তা অমান্য করে ইয়াহিয়া ও ভুট্টোর কুশপুতুল দাহ করে রাজপথে বিক্ষোভ মিছিল বের করে এবং সেনাবাহিনী বিনা উস্কানিতে গুলিবর্ষণ করলে নগরীর বিভিন্ন স্থানে মিছিল সহিংস হয়ে ওঠে।

দৈনিক গোপালগঞ্জ
দৈনিক গোপালগঞ্জ
জাতীয় বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর