• বৃহস্পতিবার   ০৯ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২৫ ১৪২৭

  • || ১৯ জ্বিলকদ ১৪৪১

দৈনিক গোপালগঞ্জ
১০৬

বাড়িতে বাবার লাশ রেখে পরীক্ষা দিচ্ছে মেয়ে

দৈনিক গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

ফরিদপুরের সদরপুরে বাবার মরদেহ বাড়িতে রেখে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে মেয়ে। রোববার (২৩ ফেব্রুয়ারি) সদরপুর উপজেলার বিশ্ব জাকের মঞ্জিল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্রে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয় মেয়ে বিথী আক্তার। সে উপজেলার চন্দ্রপাড়া সুলতানিয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এ বছর এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে। বিথী বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী। শিক্ষার্থী বিথী আক্তারের বাড়িতে চলছে তার বাবার মরদেহ দাফনের প্রস্তুতি। স্বজনরা শোকাহত। এমন অবস্থায় বাবার মরদেহ বাড়িতে রেখে পরীক্ষা দিচ্ছে বিথী।

এলাকাবাসী জানায়, ঢেউখালী ইউনিয়নের চন্দ্রপাড়ার রাজারচর কাঠতলা মোড় এলাকার বাসিন্দা আনোয়ার আলী (৫০) সকালে নিজ বাড়িতে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। দুপুরের দিকে তার জানাজার সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। আনোয়ার আলীর দুই ছেলে ও চার মেয়ে রয়েছে। তার মৃত্যুতে সেজ মেয়ে বিথী এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়ার বিষয়ে দোটানায় পড়ে। তবে সে পরীক্ষায় অংশ নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। বাবাকে হারিয়ে কাঁদতে কাঁদতে পরীক্ষা দেয় সে। পরীক্ষা শেষে বিথী বাড়ি ফিরলেই বাবার দাফন কাজ শেষ হবে।

বিথীর বাবা আনোয়ার আলী একজন কৃষক। যত কষ্টই হোক মেয়েকে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত করার স্বপ্ন ছিল তার। পারিবারিকভাবে অস্বচ্চল থাকা সত্বেও মেয়ের পড়াশোনা চালিয়ে যেতে বাবার প্রবল ইচ্ছার জেরে বিথী এবার এসএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে। পরীক্ষায় অংশ নেয়ার আগে বিথী আক্তার জানায়, বাবা তাকে অনেক ভালোবাসতেন। বাবা চাইতেন, সে যেন পড়ালেখা করে অনেক বড় হয়। বাবার ভালোবাসা এবং স্বপ্নের জন্যই তার এ পরীক্ষা দেয়া।

পরীক্ষায় দায়িত্বরত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সজল চন্দ্র শীল বলেন, বাবাকে হারানো যে কোনো সন্তানের জন্য খুবই কষ্টদায়ক। এরপরও বিথী বাবা হারানোর কষ্ট নিয়ে পরীক্ষা দিচ্ছে। আমরা তার পরীক্ষার সময় যতটা সহযোগিতা দরকার করছি। সদরপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. জালাল উদ্দিন বলেন, বিথী পরীক্ষা দেয়ার জন্য আসার পর জানতে পেরেছি। তাকে সান্ত্বনা দিয়েছি এবং পরীক্ষা দিতে উৎসাহ দেওয়া হয়েছে।

দৈনিক গোপালগঞ্জ
দৈনিক গোপালগঞ্জ
আঞ্চলিক বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর