• শনিবার   ০৬ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২৩ ১৪২৭

  • || ১৪ শাওয়াল ১৪৪১

দৈনিক গোপালগঞ্জ
১৩৯

সৌন্দর্যের অনুষঙ্গ ফুল এখন হাজার কোটি টাকার ব্যবসা

দৈনিক গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ৩ জানুয়ারি ২০২০  

মনের ক্ষুধা মেটাতে ফুলের প্রতি মানুষের আকর্ষণ চিরন্তন। তবে ভাল লাগার অনুষঙ্গ ফুল এখন হাজার কোটি টাকার ব্যবসারও বটে। দেশে ফুলের বাণিজ্যিক উৎপাদনে জড়িত প্রায় ২০ হাজার কৃষক। বলা হচ্ছে, সুযোগ সুবিধা বাড়ানো হলে, ফুল হয়ে উঠবে রপ্তানির অন্যতম খাত।

দেশের সবচেয়ে বড় ফুলের বাজার যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার গদখালি ইউনিয়ন। কুয়াশামাখা শীতের সকালের আড়মোরা ভেঙে, ভোরের আলো ফুটতেই ফুল বাগানে শ্রমিকের ব্যস্ততা।

যশোর শহর থেকে প্রায় ২৫ কিলোমিটার দূরের এই গ্রামে এলেই চোখে পড়ে দৃষ্টিনন্দন ফুলের বাগান। গাদা, গোলাপ, রজনিগন্ধা তো আছেই; দেখা মিলবে নানা বিদেশি ফুলও।

গদখালি ইউনিয়নের এই পানিসারা গ্রামে বাণিজ্যিকভাবে ফুল চাষের শুরু ১৯৮৩ সালে। প্রায় চার দশক পেরিয়ে এখন এখানে দেড় হাজার হেক্টর জমিতে হচ্ছে ফুল চাষ। যাতে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত প্রায় ৬ হাজার কৃষক। 

বর্তমানে ২৫ টি জেলায় ছড়িয়েছে ফুলের চাষ। একটি হিসাব বলছে, বছরে দেশে কাঁচা ফুলের বাজার প্রায় দেড় হাজার কোটি টাকার। বাংলাদেশ ফ্লাওয়ার সোসাইটির প্রেসিডেন্ট বলছেন, পৃষ্ঠপোষকতা পেলে সম্ভাবনাময় এই খাত আগামী এক দশকে পৌঁছাবে পাঁচ হাজার কোটিতে।

চাহিদা থাকা ও মুনাফা ভালো হওয়ায়, এ অঞ্চলে বাড়ছে ফুল চাষে আগ্রহ। তবে চ্যালেঞ্জও অনেক।

গ্রামের বড় বড় পলিশেড বা বিশেষ ঘর তৈরি করে সেখানে হয় জারবেরা ফুল চাষ। বর্তমানে এর চাহিদাও অনেক।

পানিসারা গ্রাম থেকে প্রায় দুই কিলোমিটার দূরে যশোর-বেনাপোল মহাসড়কের পাশে গদখালি বাজার। দেশের সবচেয়ে বড় এ ফুল বাজারে সারা বছরই বেচাকেনা চললেও, তা কয়েকগুণ বেড়ে যায় বিশেষ দিনগুলো সামনে রেখে।

দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আসা ব্যবসায়ীরা এ বাজার থেকে ফুল নিয়ে যান, যা চলে যায় রাজধানীসহ দেশের নানা প্রান্তে।

দৈনিক গোপালগঞ্জ
দৈনিক গোপালগঞ্জ
সুসংবাদ বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর