• বৃহস্পতিবার   ০৬ অক্টোবর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ২১ ১৪২৯

  • || ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

দৈনিক গোপালগঞ্জ

ভাঙন ঝুঁকিতে ‘স্বপ্ননগর’ আশ্রয়ণ প্রকল্প

দৈনিক গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২  

ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা উপজেলায় মধুমতি নদীর পানি বাড়ায় হঠাৎ ভাঙন দেখা দিয়েছে। উপজেলার দিকনগর খেয়াঘাটের দক্ষিণ-পূর্ব অংশে অস্থায়ী রক্ষা বাঁধের সাড়ে ৭০০ মিটার নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। ফলে ভাঙন ঝুঁকিতে পড়েছে আলফাডাঙ্গার আশ্রয়ণ প্রকল্প ‘স্বপ্ননগর’। জমিসহ এসব ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে ২০২০ সালের ১২ অক্টোবর।

জানা যায়, আলফাডাঙ্গার গোপালপুর ইউনিয়নের চরকাতলাসুর গ্রামে ৫৩ একর জমির ওপর নগরের সব সুবিধা নিয়ে ‘স্বপ্ননগর’ নামে আবাসন এলাকা নির্মাণ করা হয়। যাদের জমি নেই, ঘর নেই এমন ২৮৬ পরিবারের ঠাঁই হয়েছে স্বপ্ননগরে। ঘর নির্মাণের পাশাপাশি তৈরি করা হয়েছে মসজিদ, মন্দির, বিদ্যালয়, হাট, খেলার মাঠ, ঈদগাহ, কমিউনিটি ক্লিনিক, শিশুপার্ক, ইকোপার্ক ও সামাজিক বনায়ন। এছাড়া উপকারভোগীদের জন্য সুপেয় পানির ব্যবস্থা করা হয়েছে।

এদিকে আশ্রয়ণ প্রকল্পটি রক্ষায় পানি উন্নয়ন বোর্ড প্রায় ৯০০ মিটার অস্থায়ী বাঁধ নির্মাণ করে। কিন্তু হঠাৎ করে মধুমতি নদীতে পানি বাড়ায় বাঁধের প্রায় সাড়ে ৭০০ মিটার নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। ফলে আশ্রয়ণ প্রকল্পের প্রায় ৩০টি ঘর ভাঙনের হুমকির মুখে পড়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দা ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আ. কুদ্দুস বলেন, অস্থায়ী নদী রক্ষা বাঁধ ভেঙে যাওয়ায় স্থানীয় বাসিন্দারা দুশ্চিন্তায় পড়েছে। ভাঙ্গন রোধে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দ্রুত সময়ের মধ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানাই।

শাহরিয়ার হোসেন নামে এক ব্যবসায়ী বলেন, মধুমতিতে পানি বেড়েছে। কয়েকদিনে অস্থায়ী বাঁধের প্রায় সাড়ে ৭০০ মিটার নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। দুই বছর যেতে না যেতেই রক্ষা বাঁধে ভাঙন দেখা দেয়ায় আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘরের বাসিন্দারা এখন ঘর হারানো আশঙ্কায় উদ্বিগ্ন।

আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসিন্দা সিরাজুল ইসলাম ও হুরি বেগম বলেন, আমরা মাথা গোঁজার ঠাঁই হিসেবে স্বপ্ননগরে একটু আশ্রয় পেয়েছিলাম। এখন এ আশ্রয় হারালে আমাদের আবার পথে পথেই থাকতে হবে। প্রধানমন্ত্রী আমাদের ঘর দিয়েছে, সেই ঘরে শান্তিতে বসবাস করছি। নদীতে বিলীন হয়ে গেলে আমরা কোথায় যাবো? তাই দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানাচ্ছি।’

গোপালপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ইনামুল হাসান বলেন, চলতি বছরের কয়েক মাস আগে পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক অস্থায়ী বাঁধ এলাকায় বালু ভর্তি বস্তা ফেলা হয়। গত কয়েকদিনে মধুমতি নদীতে পানি বেড়েছে। ফলে ভাঙনও বাড়ছে। চর কাতলাসুর স্বপ্ন নগর আশ্রয়ণ প্রকল্পের সামনের অংশের মধুমতি নদী অস্থায়ী রক্ষা বাঁধের বেশিরভাগ অংশ নদীতে চলে গেছে। ভাঙ্গন রোধে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানাই।

আলফাডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. রফিকুল হক বলেন, অস্থায়ী বাঁধটি কিছুদিন আগে মেরামত করা হয়েছিল। কিন্তু, হঠাৎ নদীতে পানি বাড়ায় ভাঙন বেড়েছে। তবে, আমি সরেজমিনে ওই এলাকায় গিয়েছিলাম। সেখানে অস্থায়ী বাঁধের প্রায় ৮০ ভাগই ভেঙে গেছে। এব্যাপারে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে বলে জানান প্রশাসনের এ কর্মকর্তা।

এ বিষয়ে ফরিদপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী পার্থ প্রতিম সাহা বলেন, মে মাসে আপদকালীন (ইমারজেন্সি) প্রকল্পের আওতায় মধুমতি নদীর অস্থায়ী রক্ষা বাঁধ নির্মাণ কাজ করা হয়। যা গত জুন মাসে সমাপ্ত হয়। নদীতে ফের পানি বাড়ায় ভাঙন দেখা দিয়েছে। তবে, ভাঙন এলাকা সরেজমিন পরিদর্শনে লোক পাঠানো হয়েছে। এব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে দ্রুত কাজ করা হবে।

দৈনিক গোপালগঞ্জ
দৈনিক গোপালগঞ্জ