• বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৬ ১৪৩১

  • || ২১ জ্বিলকদ ১৪৪৫

দৈনিক গোপালগঞ্জ

দাবদাহে তৃষ্ণার্ত পাখির জন্য সিকান্দারের ভালোবাসা

দৈনিক গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ১ মে ২০২৪  

আগুন ঝরা এই গরম আর দাবদাহে মানুষের মতো প্রাণিদেরও হাঁসফাঁস অবস্থা। ইট-কংক্রিটের এই শহরে তাদের মাথা গোঁজার মতো কোনো গাছ নেই। তাই প্রাণিদের জন্যে এগিয়ে এসেছেন অনেকে।

বাসার ছাদে কিংবা বারান্দায় পাখিদের জন্য ঠাণ্ডা পানি ও খাবারের ব্যবস্থা করেছেন তারা। এমন উদ্যোগ ছড়িয়ে দিতে পারলে এই গরমে পশু-পাখিরাও বেঁচে থাকতে পারবে।

পারদ চড়তে চড়তে রেকর্ড উচ্চতায় চলে যাবার পরও প্রকৃতির কোথাও যেনো করুনার আভাস নেই। গ্রীষ্মের রোদ আগুন হয়ে ঝড়ছে। কী নগর কী গ্রাম, দিনের পর দিন বৃষ্টিহীন প্রকৃতি।

এই আগুন গরমে সবচেয়ে বেশি বিপাকে পশু-পাখিরা। গরম থেকে বাঁচতে মানুষ নিজের মতো করে অনেক কিছুর ব্যবস্থাই করতে পারে। কিন্তু অবলা প্রাণিদের সেই সাধ্য নেই। তাদের অব্যক্ত কষ্ট ক’জন বুঝতে পারে?

তীব্র তাপদাহের কারণে শুধু মানুষ নয়, প্রাণিকুলেও পড়েছে পানির হাহাকার। বিশেষ করে পাখিরা ভয়ানক কষ্ট পাচ্ছে এই প্রচণ্ড তাপপ্রবাহে। বিষয়টি নজর এড়ায়নি রাজধানীর এক পাখি প্রেমিকের।

প্রাণ-প্রকৃতি প্রেমী তেমনই একজন মানুষ নিউ ইস্কাটনের সিকান্দার। দীর্ঘদিন ধরে কবুতর পুষেন। তাই পাখির ভাষাও বোঝেন। পাখিদের জন্য বাড়ির ছাদে পানি ও খাবারের ব্যবস্থা রেখেছেন সিকান্দার।

ছাদের বিভিন্ন জায়গায় পানির পাত্র রেখেছেন তিনি। তপ্ত দুপুরে কাক, শালিক, ঘুঘু ও নীড় হারা সব পাখিরা নিয়মিত তেষ্টা মেটায়। পানির তেষ্টা মেটানোর আশায় প্রতিদিনই পাখির সংখ্যা বাড়ছে এই গরমে।

সিকান্দার বলেন, এবার তীব্র গরম পড়ছে। মাঠে, খালে-বিলে কোথাও পানি নেই। রাজধীনতে কোন জলাশয় নেই। গরমে নাভিশ্বাস উঠছে মানুষের। পাখিরাও পানির জন্য কষ্ট পাচ্ছে। তাই আমি এ উদ্যোগ নিয়েছি।

ইট-কংক্রিটের এই শহরে গাছ নেই। তপ্ত দুপুরে গাছের ডালে বসে পাখীদের ছায়া পাবার সুযোগ নেই। নেই পানির জোগান। কারণ প্রকৃতির পুকুর, খাল জলাভূমি সবই ভরাট করেছে নগরবাসি।

তাই পাখি ও পশুপ্রেমীরা বলছেন, তাপপ্রবাহের এই সময়ে প্রাণীদের কষ্টের কথা জেনে আমরা ভুলে না যাই। অথচ চোখ মেলে তাকালেই গাছের ডালে দেখা মেলে তৃষ্ণার্ত পাখিদের।

বাসাবাড়িতে আমরা অনেকেই দামি দামি পাখি, বিড়াল বা কুকুর পুষি। এই গরমে তাদের যত্নে টাকাও খরচ করি। কিন্তু প্রথের প্রাণীদের প্রতি কি একটু মায়ার হাত বাড়িয়ে দিতে পারি না?

অতিরিক্ত গরমে পাখিরা খাবারের খোঁজে ঘুরে বেড়াতে পারে না। খাবারের অভাবে মারাও যায়। তাই বারান্দায় রঙিন পাত্রে তাদের জন্য ধান, চাল, বিভিন্ন রকম বীজ, যব, ভুট্টা, ফলের টুকরো রেখে দিন।

দৈনিক গোপালগঞ্জ
দৈনিক গোপালগঞ্জ