• মঙ্গলবার   ০৬ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২২ ১৪২৯

  • || ১২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

দৈনিক গোপালগঞ্জ

শীতে বাড়ে সোরিয়াসিসের সমস্যা, স্বস্তি মিলবে যেভাবে

দৈনিক গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ২৪ নভেম্বর ২০২২  

সোরিয়াসিস এক ধরনের চর্মরোগ। একবার ত্বকে এই সমস্যা দেখা দিলে তা ছড়িয়ে পড়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে। এই চর্মরোগ থেকে একেবারে সুস্থ হওয়া বেশ মুশকিল। তবে সোরিয়াসিসের সমস্যা নিয়ন্ত্রণে রাখা যায় কিছু নিয়ম মেনেই। বছরের অন্যান্য সময়ের তুলনায় শীতে এই চর্মরোগ বেড়ে যায়, অর্থাৎ চুলকানি ও ক্ষত বাড়ে।

ন্যাশনাল সোরিয়াসিস ফাউন্ডেশনের (এনপিএফ) এক সমীক্ষা অনুসারে, সোরিয়াসিস আক্রান্ত প্রতি ১০ জনের মধ্যে ৪ জনের ক্ষেত্রেই দেখা যায়, শীতকালে রোগটি আরো বেড়ে গেছে। শীতে ঠান্ডা আবহাওয়ায় সোরিয়াসিসের সমস্যা নিয়ন্ত্রণে রাখা মুশকিল।

ক্যালিফোর্নিয়ার মাউন্টেন ভিউয়ের চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ ও সান ফ্রান্সিসকোর ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী ক্লিনিকেল অধ্যাপক জেনি মুরাস বলেছেন, শীতে আবহাওয়া পরিবর্তনে সোরিয়াসিসের সমস্যা আরও বেড়ে যায়। তাই ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী চলতে হবে।

চাইলে সোরিয়াসিসের সমস্যায় স্বস্তি পেতে ঘরোয়া উপায়ও অনুসরণ করতে পারেন। জেনে নিন এই চর্মরোগ নিয়ন্ত্রণে করণীয় সম্পর্কে-

গরম পানি এড়িয়ে যান

ডা. মুরাসের মতে, গরম পানি ব্যবহার করবেন না সোরিয়াসিসের রোগীরা। এতে ত্বক আরও শুষ্ক হয়ে যায় ও সোরিয়াসিসের সমস্যা বাড়ে।

আমেরিকান একাডেমি অব ডার্মাটোলজির পরামর্শ অনুযায়ী, সোরিয়াসিসের সমস্যা নিয়ন্ত্রণে গরম পানি ব্যবহার করা উচিত নয়। পাশাপাশি ৫-১৫ মিনিটের বেশি গোসল করা যাবে না। আর অবশ্যই গোসলের পর ত্বকে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে হবে।

ঘর বেশি গরম রাখবেন না

ঘরের পরিবেশ যদি শুষ্ক ও গরম হয় সেক্ষেত্রেও সোরিয়াসিসের প্রভাবে চুলকানির সমস্যা আরো বাড়তে পারে।
মায়ো ক্লিনিকের তথ্য অনুসারে, ঘরের আর্দ্রতা ৩০-৫০ শতাংশের মধ্যে রাখা উচিত। এজন্য সোরিয়াসিসে আক্রান্ত রোগীরা ঘরে হিউমিডিফায়ার ব্যবহার করতে পারেন।

সুগন্ধিযুক্ত প্রসাধনী ত্বকে ব্যবহার নিষেধ

ডা. মুরাস জানান, ত্বকের শুষ্কতা এড়াতে অবশ্যই ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে হবে। তবে ময়েশ্চারাইজার ক্রিম যেন রাসায়নিক, সুগন্ধি ও রঞ্জকমুক্ত হয়। ময়েশ্চারাইজার ব্যবহারের পর যতক্ষণ না ক্রিম ত্বকের সঙ্গে মিশে যাচ্ছে, ততক্ষণ ম্যাসেজ করুন।

উলের পোশাক পরবেন না

সোরিয়াসিসে আক্রান্ত রোগীরা উলের পোশাক পরবেন না। এতে চুলকানি ও জ্বালাপোড়া বাড়তে পারে।

আবার বেশি ভারী পোশাকও পরবেন না। এতে শরীর অতিরিক্ত গরম হয়ে ঘামের সৃষ্টি হতে পারে। ফলে আক্রান্ত স্থানে জ্বালাপোড়া করতে পারে।

গায়ে রোদ লাগান

সূর্যালোক সোরিয়াসিসের চিকিৎসায় দারুন কার্যকরী। যাকে বলা হয় ফটোথেরাপি। শীতকালে সোরিয়াসিসের খারাপ প্রভাব কাটিয়ে উঠতে ফটোথেরাপি দারুন কাজ করে বলে জানান ডা. মুরাস।

আমেরিকান একাডেমি অব ডার্মাটোলজির জার্নালে অক্টোবর ২০১৯ সালে প্রকাশিত এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, সোরিয়াসিস রোগীদের জীবনযাত্রার মান উন্নত করতে জৈবিক ওষুধের চেয়ে ফটোথেরাপি বেশি কার্যকর।

যা সূর্যের আলোর মাধ্যমে গ্রহণ করা হয়। তবে শীতে যেহেতু রোদের দেখা কম মেলে এজন্য সোরিয়াসিস আরো বেড়ে যায়।

দৈনিক গোপালগঞ্জ
দৈনিক গোপালগঞ্জ