• রোববার ১৪ জুলাই ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৩০ ১৪৩১

  • || ০৬ মুহররম ১৪৪৬

দৈনিক গোপালগঞ্জ

আসামে বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৮৫

দৈনিক গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ৯ জুলাই ২০২৪  

ব্রহ্মপুত্রসহ আরো ৯টি নদীর পানি বিপৎসীমার ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়ায় ভারতের আসামে ভয়াবহ বন্যা দেখা দিয়েছে। বন্যার পানিতে এখন পর্যন্ত ২৮টি জেলার প্রায় ২৩ লাখ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। বন্যা ও ভূমিধসের ঘটনায় রাজ্যটিতে নতুন করে ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এত মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৫ জনে।

আসাম স্টেট ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট অথোরিটির (এএসডিএমএ) তথ্যানুসারে, বন্যা ও ভূমিধসে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরো ছয় জনের মৃত্যু হয়েছে। ধুবড়ি জেলায় দুজন, গোয়ালপাড়া জেলায় ১ জন, গোলাঘাটে ২ এবং শিবাসগড়ে ১ জন বন্যার পানিতে ডুবে মারা গেছেন।

বন্যায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ধুবরি জেলা। এই জেলার উপদ্রুত এলাকাগুলোতে পানিবন্দি অবস্থায় রয়েছেন অন্তত ৪ লাখ ৭৫ হাজার মানুষ। এ তালিকায় দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে রয়েছে কাছাড় ও বেরপাতা জেলা। এ দু’টি জেলায় বন্যার জেরে ক্ষতিগ্রস্ত লোকজনের সংখ্যা যথাক্রমে ২ লাখ এবং এবং ১ লাখ ৩৬ হাজার।

গত প্রায় দেড় মাসের বন্যায় আসামের ৩ হাজার ১৫৪টি গ্রামের প্রায় ৫০ হাজার হেক্টর জমির ফসল সম্পূর্ণ নষ্ট হয়ে গেছে। মারা গেছে হাজার হাজার গবাদি পশু ও হাঁসমুরগি। এছাড়ার রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় সেতু, রাস্তাঘাট প্রভৃতি অবকাঠামোরও ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বন্যার কারণে।

মঙ্গলবারের বিবৃতিতে এএসডিএমএ জানিয়েছে, বন্যার্তদের জন্য সরকারি উদ্যোগে রাজ্যের ২৫ জেলায় মোট ৫৪৩টি ত্রাণ শিবির খোলা হয়েছে। এসব শিবিরে আশ্রয় নিয়েছেন বন্যার কারণে বাড়ি-ঘড় ছেড়ে আসতে বাধ্য হওয়া ৩ লাখ ৪৫ হাজার ৫০০ জন মানুষ। এছাড়া আটকে পড়া পানিবন্দিদের উদ্ধারে রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় কাজ করছে দুর্যোগ মোকাবিলা দপ্তরের কর্মীদল। ভারতের আধাসামরিক বাহিনী এসডিআরএফ এবং এনডিআরএফ এক্ষেত্রে তাদের সহযোগিতা করছে।

দৈনিক গোপালগঞ্জ
দৈনিক গোপালগঞ্জ