• মঙ্গলবার   ২৫ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ১২ ১৪২৮

  • || ২১ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

দৈনিক গোপালগঞ্জ

নিয়ম ভেঙে ২০ শিক্ষকের চাকরি স্থায়ী করলেন বশেমুরবিপ্রবি উপাচার্য!

দৈনিক গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ১১ নভেম্বর ২০২১  

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির নেতাদের হস্তক্ষেপে একের পর এক নিয়ম লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠেছে উপাচার্য এ কিউ এম মাহবুবের বিরুদ্ধে। এবার তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের রিজেন্ট বোর্ড কর্তৃক পাসকৃত নিয়ম উপেক্ষা করে শিক্ষা ছুটির বিপরীতে ২০ শিক্ষকের চাকরি স্থায়ী করেছেন উপাচার্য।

১৯ আগস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন রেজিস্ট্রার মো. আব্দুর রউফ কর্তৃক স্বাক্ষরিত ২০ শিক্ষকের চাকরি স্থায়ীকরণ প্রসঙ্গে এক আদেশে বলা হয়, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন ইউজিসি কর্তৃক প্রেরিত ৮ আগস্ট-২০২১ এর স্মারক অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের পদ সৃষ্টি ও অনুমোদনের প্রেক্ষিতে শিক্ষাছুটির বিপরীতে রিজেন্ট বোর্ডের অনুমোদন সাপেক্ষে বিভিন্ন বিভাগের ২০ শিক্ষকের পদ স্থায়ী করা হয়েছে। তবে এক্ষেত্রে শিক্ষাছুটির বিপরীতে নিয়োগ প্রাপ্ত শিক্ষকদের চাকরি স্থায়ীকরণের বিষয়ে ইতিপূর্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের রিজেন্ট বোর্ড কর্তৃক পাসকৃত আইন মানা হয়নি।

২০১৬ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয়টির ১৮তম রিজেন্ট বোর্ডের সভায় সিদ্ধান্ত হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকগণের উচ্চতর পদের বিপরীতে/শিক্ষাছুটির বিপরীতে অস্থায়ীভাবে নিয়োগ প্রাপ্তদের স্থায়ী পদ প্রাপ্তি সাপেক্ষে চাকরি স্থায়ীকরণ করা যাবে। তবে এক্ষেত্রে বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে স্থায়ী পদে নিয়োগ প্রদান করতে হবে।

চাকরি স্থায়ী হওয়া শিক্ষক ড. মো. বশির উদ্দিন বলেন, 'আমরা ভাইভা বোর্ড এবং রিজেন্ট বোর্ড ফেস করেই শিক্ষা ছুটির বিপরীতে নিয়োগ পেয়েছি। মাঝে আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য না থাকায় এবং করোনার কারণে চাকরি স্থায়ীকরণ প্রক্রিয়াতে ইতিমধ্যে অনেক দেরি হয়ে গেছে। তাই শিক্ষকের পোস্ট আসার পরে উপাচার্য অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের পদ্ধতি অনুসরণ করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ না করেই সরাসরি নিয়োগ স্থায়ী করেছেন। কারণ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে নিয়োগ স্থায়ী করতে হলে আরো অনেক বেশি সময় অতিবাহিত হয়ে যেত।'

শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. কামরুজ্জামান জানান, তারা এ বিষয়ে উপাচার্যের সঙ্গে আলোচনা করে পরামর্শ দিয়েছিলেন তিনি ইউজিসি কর্তৃক পোস্ট অনুমোদন সাপেক্ষে এ সকল শিক্ষকদের চাকরি স্থায়ী করতে পারেন এবং পরবর্তীতে বিষয়টি রিজেন্ট বোর্ডে উত্থাপন করতে পারেন। পরবর্তীতে ইউজিসি কর্তৃক পদ আসার পরে উপাচার্য জানিয়েছেন রিজেন্ট বোর্ডের অনুমোদন সাপেক্ষে শিক্ষা ছুটির বিপরীতে নিয়োগপ্রাপ্ত চিক্ষকদের চাকরি স্থায়ী করবেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. এ কিউ এম মাহবুব বলেন, তিনি স্থায়ী পদের বিপরীতে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করাসহ সকল ধরনের প্রক্রিয়া মেনে যথাযথ উপায়ে চাকরি স্থায়ী করছেন।

২০ পদের জন্য পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রদান করা হয়নি নিশ্চিত করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মোরাদ হোসেন বলেন, এই অফিস-আদেশটি যখন প্রদান করা হয় তখন আমি রেজিস্ট্রারের দায়িত্বে ছিলাম না। তৎকালীন রেজিস্ট্রার এবং উপাচার্যের সম্মতিতেই এই আদেশ প্রদান করা হয়েছিল।

এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে কিংবা কোনো পত্রিকায় এ সকল পদের বিপরীতে কোনো স্থায়ী নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি পাওয়া যায়নি।

দৈনিক গোপালগঞ্জ
দৈনিক গোপালগঞ্জ