• বুধবার   ০৮ ডিসেম্বর ২০২১ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২৪ ১৪২৮

  • || ০৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

দৈনিক গোপালগঞ্জ

হামলা-ভাঙচুরের ঘটনায় ভারতীয় গোয়েন্দা বাহিনীর সম্পৃক্তঃজাফরুল্লাহ

দৈনিক গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ১৮ অক্টোবর ২০২১  

কুমিল্লার অপ্রীতিকর ঘটনার পর চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ ও নোয়াখালীতে সংঘঠিত ঘটনার পেছনে ভারতীয় গোয়েন্দা বাহিনীর সম্পৃক্ততা রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

রোববার বেলা সাড়ে তিনটার দিকে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের চৌমুহনীতে হামলা-ভাঙচুরে ক্ষতিগ্রস্ত কয়েকটি মন্দির পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘বিচার বিচার করে লাভ নাই। ১৫ দিনের মধ্যে বিচার শেষ করেন। একতরফাভাবে কাউকে দোষ দিলে হবে না। যতজনের ক্ষতি হয়েছে, ১৫ দিনের মধ্যে ক্ষতিপূরণ দেবেন। মন্দিরের যে অবস্থা হয়েছে, এটা আমার লজ্জা। বাংলাদেশের লজ্জা।’

জাফরুল্লাহ চৌধুরী আরও বলেন, ‘এখানে একটা ভারতীয় গোয়েন্দা বাহিনীর চক্রও জড়িত আছে। ভারতের রাজনীতির সঙ্গে আমার দেশের রাজনীতি জড়িত হয়ে গেছে। আমার প্রধানমন্ত্রী বোঝাতে চায়, আমাকে ছাড়া এখানে সংখ্যালঘুর কোনো উপায় নেই। ওরা (ভারত) যেটা বলছে, “তোমরা যদি ইলেকশনে জিততে চাও, আমাকে সঙ্গে নিতে হবে।”’

জাফরুল্লাহ চৌধুরী জাতীয় সরকারের প্রস্তাব করে বলেন, ‘আমি প্রস্তাব করছি, যেহেতু সরকারের ব্যর্থতায় এ ঘটনা হয়েছে, সরকারের ভুলের কারণে যেটা হয়েছে, আমাদের ভাই মারা গেছে, পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। দোকানপাট, মন্দির এতভাবে ক্ষতি হয়েছে। এ সরকারের উচিত হবে পদত্যাগ করা। জাতীয় সরকার হলে আমরা সবাই মিলিতভাবে প্রতিশ্রুতি দেব, প্রতিজ্ঞা করব, এ ঘটনার পুনরাবৃত্তি হবে না।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান কামালের প্রশংসা করে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘এ সরকারে যদি পাঁচজন মন্ত্রী ভালো থাকেন, উনি তাঁর একজন। আমাদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সজ্জন ব্যক্তি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে ভুল তথ্য কে দিয়েছে? গোয়েন্দা বাহিনী। এই গোয়েন্দা বাহিনীর অধিকাংশই ভারতীয়। “র” আসাদুজ্জামানের ওপর একটু খ্যাপা আছে। কেন খ্যাপা আছে? মৌলভি সাহেবেরা, আলেমেরা নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে স্লোগান দিয়েছিল, তাদের অ্যারেস্ট করেছে কিছু, এখনো জেলে আছে। তাদের সঙ্গে আসাদুজ্জামান দেখাও করেছেন। এই দেখা করা পছন্দ করেনি একটা শ্রেণি।’

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘ওনার (স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী) ব্যর্থতাটা হলো সরকারি ব্যর্থতা। যখন উনি সন্দেহ করেছেন, উনি যখন বলেছেন, আমি মন্দিরের নিরাপত্তা দেব, তখন আরও সতর্ক হওয়ার দরকার ছিল। আমি হাজীগঞ্জে দেখেছি, এখানকার মতো এত খারাপ অবস্থা দেখিনি। ক্ষতিগ্রস্ত প্রত্যেককে আগামী ১৫ দিনের মধ্যে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।’

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ভাসানী অনুসারী পরিষদের মহাসচিব শেখ রফিকুল ইসলাম, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রেস উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম, শহীদ আসাদের ছোট ভাই নুরুজ্জামান প্রমুখ।

দৈনিক গোপালগঞ্জ
দৈনিক গোপালগঞ্জ