• মঙ্গলবার   ০৬ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২২ ১৪২৯

  • || ১২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

দৈনিক গোপালগঞ্জ

গুলিতে নয়, ইটের আঘাতেই শাওনের মৃত্যু

দৈনিক গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২  

মুন্সিগঞ্জের মুক্তারপুর পুরাতন ফেরিঘাটে বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে সংঘর্ষ ও যুবদল কর্মী শহীদুল ইসলাম শাওন নিহত হওয়ার ঘটনায় ব্যাখা দিয়েছে পুলিশ। আজ বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বেলা ১২টার দিকে পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সভাকক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহফুজুর রহমান আল-মামুন জানান, যুবদল কর্মী শহীদুল ইসলাম শাওনের মাথায় আঘাতের কারণে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়ে মারা গেছেন। ময়নাতদন্ত রিপোর্টেও বুলেটে নয়, মাথায় আঘাতের আলামত পাওয়া গেছে।

তিনি বলেন, ২১ সেপ্টেম্বর বিকেলে পুরাতন ফেরিঘাটে সদর উপজেলা বিএনপি ও মুন্সীগঞ্জ পৌর বিএনপি নেতাকর্মীরা অবৈধ অনির্ধারিত সমাবেশ ও ঝটিকা মিছিল বের করে। এ সময় তাদের অন্তর্কোন্দলের জের ধরে নিজেদের মধ্যে মারামারি শুরু হয়। তারা শ্রমিক লীগের অফিস ভাঙচুর করলে জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়। এমন পরিস্থিতিতে ঘটনাস্থলে পুলিশ উপস্থিত হলে বিএনপি নেতাকর্মীরা মারমুখী হয়ে উঠে। এ সময় চারদিক থেকে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ শুরু করে। ইটের আঘাতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর সার্কেল, সদর থানার ওসিসহ অন্তত ১৬ পুলিশ সদস্য আহত হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ শর্টগানের রাবার কার্তুজ ও গ্যাসশেল নিক্ষেপ করে। বিএনপি নেতাকর্মীরা ৩-৪টি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে। পরে পুলিশ ২৪ জন অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে।

পুলিশ সুপার আরও জানান, ওই দিনের ঘটচনায় নৈরাজ্য সৃষ্টি করাসহ আইন-শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে বাধা দেওয়ার অভিযোগ পুলিশ ও পাবলিক বাদী হয়ে পৃথক দু’টি মামলা রুজু করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহফুজুর রহমান আল-মামুন দাবি করেন, যুবদলের কর্মী শাওন বিএনপির অপর এক কর্মীর পেছন থেকে ছুড়ে মারা ইটের আঘাতে আহত হন। গুরুতর অবস্থায় স্বজনরা তাকে চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে ২২ সেপ্টেম্বর দিনগত রাত ৯টার দিকে মারা যান।

পুলিশ সুপার উল্লেখ করেন, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের সম্মুখে নিহত শাওনের লাশের সুরতহাল সম্পন্ন করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেকের ফরেনসিক বিভাগে হস্তান্তর করে। ফরেনসিক বিভাগ নিহতের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করতে চূড়ান্ত মতামত প্রদানের ভিসেরা পরীক্ষা করে। তাতে মাথায় আঘাত জনিত কারণেই মৃত্যু হয়েছে বলে মতামত প্রদান করেছে। নিহত শাওনের মাথার পেছনে থেতলানো আঘাত রয়েছে বলে তাতে উল্লেখ রয়েছে। গান শুটের কোনো আঘাত নেই।

এর আগে শাওনের মৃত্যু নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ভিডিও ক্লিপ ছড়িয়ে পরে তাতে দেখা যায়, নিজেদের ছোড়া ইটের আঘাতেই মাটিতে লুটিয়ে পড়েন যুবদলকর্মী শহিদুল ইসলাম শাওন। মোবাইলে ধারণ করা ভিডিওতে দেখা যায়, সংঘর্ষের সময় অগ্রভাগ থেকে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করছেন নিহত যুবদল নেতা শাওন।

ভিডিওতে আরও দেখা যায়, শাওনের সঙ্গে ২৫ থেকে ৩০ জন নেতাকর্মী ইটপাটকেল নিক্ষেপ করছে। একপর্যায়ে শাওন ইট নিক্ষেপ করতে করতে সামনের দিকে চলে গেলে হঠাৎ পেছন থেকে ছোড়া ইট এসে পড়ে তার মাথায়। শাওন মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। তবে বিএনপি ও পরিবারের দাবি, পুলিশের ছোড়া গুলি মাথায় লাগে শাওনের। পরে আহত অবস্থায় তাকে আনা হয় ঢাকা মেডিকেলে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় মারা যান তিনি।

এ ঘটনায় প্রায় অর্ধ শতাধিক লোক আহত হয়। আহতদের মধ্যে পুলিশ, সাংবাদিকসহ বিএনপি নেতাকর্মী রয়েছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত দুটি মামলায় মোট ২৬ জনকে গ্রেফতার দেখানো হয়। মামলা দুটিতে এজাহারভুক্তসহ প্রায় এক হাজার ৩৬৫ জনকে আসামি করা হয়েছে।

দৈনিক গোপালগঞ্জ
দৈনিক গোপালগঞ্জ