• রোববার ১৪ জুলাই ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৩০ ১৪৩১

  • || ০৬ মুহররম ১৪৪৬

দৈনিক গোপালগঞ্জ

হিরা অত শক্ত কেন?

দৈনিক গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ৮ জুলাই ২০২৪  

হিরা পৃথিবীর সবচেয়ে কঠিন প্রাকৃতিক পদার্থগুলোর মধ্যে একটি। এই অসাধারণ কঠিনতার পেছনে কিছু বিশেষ বৈজ্ঞানিক কারণ রয়েছে। 

হিরা মূলত কার্বনের ক্রিস্টালাইন ফর্ম। অর্থাৎ হিরা আর কার্বন যেমন কয়লার মধ্যে কোনো পার্থক্য নেই।

পার্থক্য শুধু অণুগুলোর সজ্জাতে। হিরায় প্রতিটি কার্বন পরমাণু চারটি অন্য কার্বন পরমাণুর সাথে শক্তিশালী সমযোজী বন্ধনের মাধ্যমে যুক্ত থাকে। এই বন্ধনগুলি একটি টেট্রাহেড্রাল গঠন তৈরি করে, যা হিরার অভ্যন্তরীণ গঠনকে অত্যন্ত স্থিতিশীল এবং শক্তিশালী করে তোলে।

 

সমযোজী বন্ধন কার্বন পরমাণুগুলির মধ্যে ইলেকট্রন শেয়ারের মাধ্যমে গঠিত হয়।

হিরার প্রতিটি কার্বন পরমাণু চারটি অন্য কার্বন পরমাণুর সাথে সমযোজী বন্ধন গঠন করে। ফলে একটি ত্রিমাত্রিক জালিকা তৈরি হয়। এই জালিকা অত্যন্ত শক্তিশালী এবং হিরার কঠিনতার মূল কারণ।

 

হিরার অভ্যন্তরীণ গঠনটি একটি স্ফটিক ল্যাটিস গঠন করে।

এই ল্যাটিস কাঠামো হিরাকে মজবুত এবং অভঙ্গুর মতো করে তোলে। প্রতিটি কার্বন পরমাণু চারটি অন্য কার্বন পরমাণুর সাথে সমযোজী বন্ধন গঠন করে এবং একটি ত্রিমাত্রিক নেটওয়ার্ক তৈরি করে। এই নেটওয়ার্কটি হিরাকে অতুলনীয় কঠিনতা দেয়।

 

স্ফটিক কাঠামোর মাধ্যমে গঠিত বলে হিরা চমৎকার তাপ পরিবাহক। হিরা আলোকে অতি সুন্দরভাবে প্রতিফলিত করে, যা তাকে আরও মূল্যবান করে তোলে।

হিরা রাসায়নিকভাবে স্থিতিশীল এবং সাধারণত রাসায়নিক পদার্থের সাথে বিক্রিয়া করে না।

 

অর্থাৎ হিরার কঠিনতার পেছনে রয়েছে তার বিশেষ ধরনের অভ্যন্তরীণ গঠন এবং শক্তিশালী সমযোজী বন্ধন। এই বৈজ্ঞানিক কারণগুলো হিরাকে পৃথিবীর সবচেয়ে কঠিন প্রাকৃতিক পদার্থগুলোর মধ্যে একটি করে তুলেছে। হিরার এই অসাধারণ বৈশিষ্ট্যগুলো তাকে শুধু গয়না হিসেবেই নয়, বরং বিভিন্ন শিল্পক্ষেত্রেও গুরুত্বপূর্ণ করে তুলেছে।

দৈনিক গোপালগঞ্জ
দৈনিক গোপালগঞ্জ