• সোমবার ১৭ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৩ ১৪৩১

  • || ০৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

দৈনিক গোপালগঞ্জ

পাকিস্তানের ‘ভারত মহারণ’ আজ

দৈনিক গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ৯ জুন ২০২৪  

ভারত পাকিস্তান ম্যাচ মানেই বাড়তি চাপ-বাড়তি উত্তেজনা। পুরো পৃথিবীর ক্রিকেট প্রেমীরা দুই ভাগে বিভক্ত হয় দুই চিরপ্রতিদ্বন্দির লড়াইয়ে। এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তানের আরো একটি জম্পেস লড়াই দেখার অপেক্ষায় ক্রিকেট বিশ্ব।আজ রাতে হাইভোল্টেজ ম্যাচে যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কের নাসাউ কাউন্টি স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হবে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বি ভারত-পাকিস্তান। ‘এ’ গ্রুপের এই ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ৮টায়। দুদলের জন্যই ম্যাচটি বেশ গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষ করে পাকিস্তানের জন্য এ ম্যাচটি বাঁচা-মরার লড়াই। টুর্নামেন্টে টিকে থাকতে এই ম্যাচে জয়ের বিকল্প পথ খোলা নেই বাবর আজমদের। যদিও আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ জিতে কিছুটা নির্ভার ভারতীয় শিবির। অন্যদিকে পঁচা শামুকে পা কেঁটে এখন ডু অর ডাই সিচিুয়েশনে পাকিস্তান। নিজেদের প্রথম ম্যাচে স্বাগতিক যুক্তরাষ্টের কাছে সুপার ওভারে হেরে লজ্জায় ডুবেছে পাক বাহিনী।

তবে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচকে ছাপিয়ে এবার আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে নিউ ইয়র্কের নাসাউ কাউন্টি স্টেডিয়ামের উইকেট। এই উইকেটে ব্যাটিং করাটা ব্যাটারদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জিং হয়ে দাঁড়িয়েছে। এরআগে এই মাঠে তিন ম্যাচে কোনো দলই বড় স্কোর গড়তে পারেনি। তাই ভারত-পাকিস্তান ম্যাচে রানের খরা কাটাতে হাই- স্কোরিং উইকেট তৈরিতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল- আইসিসি। গত সোমবার শ্রীলঙ্কা-দক্ষিণ আফ্রিকা ম্যাচ দিয়েই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয় নিউ ইয়র্কের নাসাউ কাউন্টি স্টেডিয়ামের। ঐ ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে ১৯ ওভার এক বলে মাত্র ৭৭ রানে অলআউট হয় শ্রীলংকা। সেই ম্যাচ জিততে ১৭ ওভার পর্যন্ত খেলতে হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকাকে।

এরপর একই ভেন্যুতে খেলতে নেমে হিমশিম খেয়েছে ভারত ও আয়ারল্যান্ডের ব্যাটাররা। প্রথমে ব্যাট করে ৯৬ রানে গুটিয়ে যায় আইরিশরা। ১৩তম ওভারে টার্গেট স্পর্শ করে ৮ উইকেটে জয় পায় ভারত। কিন্তু ঐ ম্যাচে উইকেটের অস্বাভাবিক বাউন্সে হাতে ও পেটে ব্যাথা পান দু’দলের বেশ কিছু ক্রিকেটার। এরমধ্যে কনুইর উপরের অংশে আঘাত পেয়ে আহত অবসর নেন ভারতের অধিনায়ক রোহিত শর্মা। এরপরই নড়ে চড়ে বসে আইসিসি। নাসাউ কাউন্টি স্টেডিয়ামের উইকেটকে ব্যাটারদের জন্য উপযোগী করে তুলতে আয়োজক যুক্তরাষ্ট্রকে নিয়ে মাঠে নামে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা।
আইসিসি ও যুক্তরাষ্ট্র নতুনভাবে উইকেট দেখভাল শুরু করার পর গতপরশু ঐ ভেন্যুতে খেলতে নামে কানাডা ও আয়ারল্যান্ড। অবশেষে দলীয় স্কোর ১শ রানের গন্ডি পেরোয় । প্রথমে ব্যাট করে কানাডা ৭ উইকেটে ১৩৭ এবং পরে আয়ারল্যান্ড ৭ উইকেটে ১২৫ রান করে। তবে উইকেট নিয়ে এখনও সন্তুষ্ট নয় আইসিসি ও যুক্তরাষ্ট্র। নিউ ইয়র্ক থেকে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ সরিয়ে ফেলা হতে পারে বলে গুঞ্জনও উঠেছিল। তাই ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের আরও ভালো উইকেট তৈরি করতে বদ্ধপরিকর আইসিসি।

ম্যাচের ভেন্যু পরিবর্তন হোক বা না হোক তা নিয়ে মাথা ব্যাথা নেই ভারত ও পাকিস্তানের। ম্যাচকে সামনে রেখে ইতোমধ্যে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি সেরে ফেলেছে দু’দল। ভারত অধিনায়ক রোহিত বলেন, ‘উইকেট নিয়ে উদ্বেগ অবশ্যই আছে। কিন্তু কিছু করার নেই। এই উইকেটেই খেলতে হবে, যেহেতু আগের থেকেই সূচি নির্ধারিত। আমরা ম্যাচের জন্য পুরোপুরি প্রস্তুতি নিয়েছি। এখন মাঠের লড়াইয়ে নামার পালা।’ নিজেদের প্রথম ম্যাচে আয়ারল্যান্ডকে ৮ উইকেটে হারিয়ে বিশ^কাপ শুরু করেছে ২০০৭ সালের চ্যাম্পিয়ন ভারত। পাকিস্তানের বিপক্ষেও জয় ছাড়া অন্য কিছু ভাবছে না টিম ইন্ডিয়া। রোহিত বলেন, ‘পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ সবসময়ই উত্তেজনাপূর্ণ ও মর্যাদার। এ ম্যাচে বাড়তি চাপ থাকে। আমরা চাপকে দূরে সরিয়ে মাঠে নিজেদের সেরাটা উজার করে দিতে চাই এবং জয় নিয়ে মাঠ ছাড়াই লক্ষ্য আমাদের। প্রথম ম্যাচে আমাদের ব্যাটিং-বোলিং খুব ভালো ছিলো। আশা করি পাকিস্তানের বিপক্ষেও দলের ব্যাটার ও বোলাররা ভালো করবে।’

অন্যদিকে, হতাশা নিয়ে অভিযান শুরু করেছে টুর্নামেন্টের আরেক ফেবারিট পাকিস্তান। নিজেদের প্রথম ম্যাচে স্বাগতিক যুক্তরাষ্ট্রের কাছে সুপার ওভারে পরাজিত হয়ে আসর শুরু করেছে তারা। ঐ ম্যাাচে দলের পারফরমেন্সে খুশি হতে পারেননি পাক অধিনায়ক বাবর আজম। ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে ঘুড়ে দাঁড়াতে চায় তার দল। বাবর বলেন, ‘প্রথম ম্যাচে আমরা তিন বিভাগেই খারাপ খেলেছি। আশা করছি, ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে ঘুড়ে দাঁড়াতে পারবো আমরা। ভারত শক্তিশালী দল। তাদের ব্যাটার-বোলাররা দারুন ছন্দে আছে। আমরাও তাদের সামলাতে সব ধরণের প্রস্তুতি ও পরিকল্পনা নিয়েছি। মাঠের লড়াইয়ে সেরাটা দিতে পারলে, সাফল্য নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারবো আমরা।’ নিউ ইয়র্কের উইকেট নিয়ে বাবর বলেন, ‘এখানকার উইকেট নিয়ে অনেক আলোচনা হচ্ছে। আমরা সেখানে খেলিনি, তাই আমাদের ধারনা কম। তবে সেখানে হওয়া তিনটি ম্যাচ দেখেছি। তাতে মনে হচ্ছে, এমন উইকেটে ব্যাট করা কঠিন হবে। উইকেটের পরিস্থিতি বুঝে খেলতে হবে।’

টি-টোয়েন্টিতে এখন পর্যন্ত ১২ বার মুখোমুখি হয়েছে ভারত-পাকিস্তান। ৯টিতে জয় পেয়েছে ভারত আর পাকিস্তান জিতেছে মাত্র ৩ ম্যাচ। ২০০৭ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ^কাপের প্রথম আসরের ফাইনালে প্রথমবার মুখোমুখি হয়েিেছলো ভারত ও পাকিস্তান। সেইম্যাচটি টাই হওয়ায় সুপার ওভারে ম্যাচ জিতে নেয় ভারত। টি-টোয়েন্টি বিশ^কাপে এপর্যন্ত সাতবার মুখোমুখি হয়েছে দু’দল। যেখানে ভারতের ৬ জয়ের বিপরীতে পাকিস্তানের জয় ১টিতে। তবে সব ছাপিয়ে আবহাওয়া কারণে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ দেখার দীর্ঘদিনের স্বপ্ন পানিতে ভেসে যেতে পারে যুক্তরাষ্ট্রবাসীর। সেখানকার আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, পুরো দিনজুড়েই নিউ ইয়র্কে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। স্থানীয় সময় সকালে ১১টায় ৫১ শতাংশ বৃষ্টিপাত হতে পারে। এর মানে, খেলা শুরুর আধ ঘণ্টার মধ্যেই বৃষ্টি নামতে পারে। বিকেল ৪টা পর্যন্ত প্রায় ৪৫-৫০ শতাংশ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

দৈনিক গোপালগঞ্জ
দৈনিক গোপালগঞ্জ