• বৃহস্পতিবার ১৮ এপ্রিল ২০২৪ ||

  • বৈশাখ ৫ ১৪৩১

  • || ০৮ শাওয়াল ১৪৪৫

দৈনিক গোপালগঞ্জ

পাওনা টাকার জন্য ‘প্রভাবশালীদের’ একি কাণ্ড!

দৈনিক গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ৪ মার্চ ২০২৩  

কাশিয়ানীতে পাওনা টাকা না পেয়ে একটি পরিবারকে নিজ ঘরে তালা দিয়ে ২৪ ঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রাখার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার রাতইল ইউনিয়নের পরানপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। রামদিয়া পুলিশ ফাঁড়ির এসআই মো. শহীদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

খবর পেয়ে স্থানীয় গ্রামপুলিশ ও ইউপি সদস্য ঘটনাস্থলে গিয়ে অনুরোধ করেও তালা খোলাতে পারেননি। পরে ৯৯৯ নম্বরে ফোন পেয়ে পুলিশ শুক্রবার ঘটনাস্থলে গিয়ে তালা খুলে তাদের উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় কাশিয়ানী থানার রামদিয়া ফাঁড়িতে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী হেরা বেগম।

অভিযোগে জানা গেছে, উপজেলার পরানপুর গ্রামের ইলিয়াস আলী মোল্যার স্ত্রী হেরা বেগমের সঙ্গে প্রতিবেশী মমতাজ বেগমের আর্থিক লেনদেন নিয়ে বিরোধ চলছিল। এরই জেরে বৃহস্পতিবার বিকালে মমতাজ বেগম লোকজন নিয়ে হেরা বেগমের বাড়িতে গিয়ে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে এবং হুমকি দেন।

পুনরায় রাত সাড়ে ১১টার দিকে ওই গ্রামের মহিউদ্দিন মিন্টুর নেতৃত্বে মমতাজ বেগম, টিপু মোল্যা লোকজন নিয়ে হেরার বাড়িতে গিয়ে হামলার চেষ্টা করেন। হেরা বেগম তাদের গতিবিধি দেখে দৌড়ে ঘরের (ইটের ঘর) মধ্যে ঢুকে পড়েন। মহিউদ্দিন লোকজন নিয়ে ঘরের তিনটি প্রবেশ মুখে তালা দিয়ে দেন এবং প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে চলে যান। সকালে বিষয়টি মোবাইলে স্থানীয় গ্রামপুলিশ ভাষান মোল্যা ও ইউপি সদস্য রিজাউল মোল্যাকে জানালে তারাও তালা খুলে দিতে ব্যর্থ হন।

দীর্ঘ ২৪ ঘণ্টা পর শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তালা খুলে অবরুদ্ধ পরিবারকে উদ্ধার করে। এ ঘটনার পর থেকে ওই পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতায় আছেন।

এ বিষয় অভিযুক্ত মহিউদ্দিন মিন্টুর সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, ‘আমি টাকা পাব না। আমার বড় ভাই হেরা বেগমের কাছে টাকা পাবে। অনেকবার চাওয়ার পরও দিচ্ছেন না। অবেশেষে তার ঘরের তিনটি প্রবেশ মুখে আমি তালা লাগিয়ে দিয়েছি।’

এ বিষয়ে ইউপি সদস্য রিজাউল বলেন, ‘বিষয়টি সমাধানের জন্য বৃহস্পতিবার রাতইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের কাছে যাওয়া হয়েছিল। দুপক্ষকে নিয়ে সমঝোতা বৈঠকে বসা হবে। কিন্তু এর আগেই তাদের বিল্ডিংয়ে তালা লাগিয়ে দিয়েছেন পাওনাদাররা। যা মারাত্মক অন্যায় করেছে।’

কাশিয়ানী থানার রামদিয়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. বাবুল আখতার বলেন, ‘অভিযোগ পেয়েছি। তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

দৈনিক গোপালগঞ্জ
দৈনিক গোপালগঞ্জ