• বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৬ ১৪৩১

  • || ১২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

দৈনিক গোপালগঞ্জ

শ্রুতি লেখকের সাহায্যে এইচএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে দৃষ্টিহীন অরিত্র

দৈনিক গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ১৮ আগস্ট ২০২৩  

অদম্য ইচ্ছা শক্তি ও দৃঢ় মনোবল নিয়ে এবারের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে দৃষ্টিশক্তিহীন মেধাবী শিক্ষার্থী অরিত্র ইশতিয়াক আলম। ইচ্ছা ও মনোবল থাকলে যে নির্দিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছানো যায় তার উৎকৃষ্ট উদাহরণ অরিত্র।

দৃষ্টিহীনতার মত বড় একটি প্রতিবন্ধকতাকে জয় করে নিজের পড়ালেখা চালিয়ে নিয়েছে সে।
বৃহস্পতিবার (১৭ আগস্ট) দেশের আট বোর্ডের অধীনে এইচএসসি পরীক্ষা শুরু হয়েছে। শ্রুতি লেখকের সাহায্যে এ পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে দৃষ্টিশক্তিহীন শিক্ষার্থী অরিত্র। সে মুখে বলে দিচ্ছে আর তার হয়ে খাতায় লিখছে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী সুচিত্রা বিশ্বাস।

অরিত্র সরকারি মুকসুদপুর কলেজ থেকে মানবিক বিভাগে পড়াশোনা করে এবারের এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে। সে গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার বাঁশবাড়িয়া গ্রামের ফিরোজ আলম মৃধার ছেলে।

অরিত্রের বাবা ফিরোজ আলম মৃধা বলেন, আমার ছেলে জন্ম থেকেই চোখে একটু কম দেখে। প্রথমে বাম চোখে সমস্যা ছিল। ভারত থেকে তার চোখের অপারেশন করানো হয়। পরে আবার তার ডান চোখে সমস্যা হয়। বর্তমানে থাইল্যান্ডে তার চিকিৎসা চলছে।

তিনি বলেন, এত সমস্যা থাকার পরেও তার অদম্য ইচ্ছা শক্তি আর পড়াশোনার প্রতি ভালোবাসা থেকেই সে এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে। অরিত্র চোখে দেখতে পায়না। তাই একজন শ্রুতি লেখকের সাহায্যে পরীক্ষা দিচ্ছে। আমি তার জন্য সবার কাছে দোয়া চাই।

সরকারি এসজে উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের সুপার সরকারি মুকসুদপুর কলেজের প্রভাষক ড. কবির আহম্মেদ বলেন, অরিত্র একজন মেধাবী ও কলেজের নিয়মিত ছাত্র। কলেজে অনুষ্ঠিত বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে বিভিন্ন সময়ে পুরষ্কার পেয়েছে। সে তার দৃষ্টিহীনতাকে জয় করে শ্রুতি লেখকের সাহায্যে পরীক্ষা দিচ্ছে। আশা করি সে ভালো ফলাফল করবে।

দৈনিক গোপালগঞ্জ
দৈনিক গোপালগঞ্জ