• বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৬ ১৪৩১

  • || ১২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

দৈনিক গোপালগঞ্জ

কাশিয়ানীর কুমার নদে অনুষ্ঠিত হলো নৌকাবাইচ

দৈনিক গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩  

গোপালগঞ্জ জেলার  কাশিয়ানী উপজেলার মহেশপুর ইউনিয়নের হোগলাকান্দি-চকবোনদোলা কুমার নদে নৌকা বাইচ  অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

ঐতিহ্যবাহী এ নৌকাবাইচ দেখতে কুমার নদের দুই পাড়ে ভিড় করেন প্রায়  লক্ষাধিক দর্শক। 

শুক্রবার (২২ সেপ্টেম্বর) বিকালে  এই নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন। 

নৌকাবাইচে ফরিদপুর,  গোপালগঞ্জ, খুলনা, মাদারীপুর, পিরোজপুর, নড়াইল, বরিশাল জেলার প্রত্যন্ত গ্রামের ২৫টি বিভিন্ন ধরনের  নৌকা অংশ নেয়। 

হোগলাকান্দি-চকবোনদোলা গ্রামের মহেশপুর সেতু থেকে চকবোনদোলা সেতু পর্যন্ত প্রায় ২ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে চলে একের পর এক বাইচ। বিকাল ৪টা থেকে শুরু হয়ে সন্ধ্যা পর্যন্ত চলা এ বাইচে ঠিকারি ও কাসার বাদ্যের তালে তালে নেচে “হেঁইও হেঁইও রবে” বৈঠার ছলাৎ-ছলাৎ শব্দে এক অনবদ্য আবহ সৃষ্টি হয় চারিদেকে।

এই নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা দেখতে বৃষ্টি উপেক্ষা করে দুপুর থেকেই কুমার নদের দুই তীর পরিপূর্ণ হয়ে ওঠে। 

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মহেশপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. লুৎফর রহামন লুথু মিয়া।  

বাইচে প্রথম হওয়া নৌকার মালিক ওসমান শেখ বলেন, আমরা বিভিন্ন স্থানে অনুষ্ঠিত হওয়া নৌকাবাইচে অংশগ্রহণ করি। এতে শুধু দর্শক নয় আমরাও আনন্দিত হই। পূর্ব পুরুষের ধরে রাখা এ ঐতিহ্য আমরাও ধরে রেখেছি। 

বাইচে দ্বিতীয় হওয়া নৌকার উকিল মিনা (৫৬) বলেন, এখন আর তেমন একটা নৌকাবাইচ হতে দেখা যায় না। তবে যেখানে শুনি নৌকাবাইচ হবে সেখানে আমরা চলে যাই। পুরস্কার পাওয়াটা আমাদের প্রধান উদ্দেশ্য নয়, মানুষকে আনন্দ দেওয়াটাই আমাদের প্রধান উদ্দেশ্য।

নৌকাবাইচ দেখতে আসা কলেজ শিক্ষার্থী হুমাইয়ারা আক্তার বলেন, এখানে নৌকাবাইচ হবে শুনে দেখতে এসেছি। সাথে আমার বাবা রয়েছে। কয়েকটি নৌকার আগে যাওয়া যে প্রতিযোগিতা তা দেখে অনেক ভাল লাগেছে।

দর্শনার্থী শরীফুল আলম (৬০) বলেন, “অনেক আগে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে নৌকাবাইচ হতো। তবে এখন তার তেমন একটা চোখে পড়ে না। 

নৌকাবাইচ আয়োজক কমিটির প্রধান গিয়াস উদ্দিন গালিব বলেন, প্রতি বছর আমরা নৌকা বাইচের আয়োজন করে থাকি। এরই ধারাবাহিকতায় এবছরও আয়োজন করেছি। আনন্দমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হলো এ নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা। 

স্থানীয় মহেশপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান লুৎফর রহমান মিয়া লুথু বলেন, এখনকার দিনে নৌকাবাইচের তেমন একটা আয়োজন দেখা যায় না। যার কারণে নির্মল বিনোদনেরও উৎস হারিয়ে যাচ্ছে। তরুণ প্রজন্ম এখন মাদকের দিকে ধাবিত হচ্ছে।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি এস এম কামাল হোসেন বলেন, শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে দেশের সংস্কৃতিকে আবার পুনর্জীবিত করেছে। এখন দেশের প্রতিটি জেলার গ্রামগঞ্জে প্রাচীন বাংলার ঐতিহ্যবাহী খেলাগুলো অনুষ্ঠিত হচ্ছে। শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকলে আগামিতেও এমন খেলা বা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে।

দৈনিক গোপালগঞ্জ
দৈনিক গোপালগঞ্জ