• রোববার   ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ২৩ ১৪২৯

  • || ১৪ রজব ১৪৪৪

দৈনিক গোপালগঞ্জ

বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বাংলাদেশের জয়

দৈনিক গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ১৪ জানুয়ারি ২০২৩  

বিশ্বমঞ্চে ফেবারিট অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৭ উইকেটে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ২ ওভার ১ বল হাতে রেখেই জয় পায় বাংলাদেশ। ১৩১ রানের লক্ষে ব্যাট করতে নেমে ১৭.৫ ওভারে জয় নিশ্চিত করে টাইগ্রেসরা। বল হাতে সম্ভাবনা জাগালেন দিশা ও মারুফারা। আর ব্যাট হাতে জয়ের পথ সুগম করলেন দিলারা ও আফিয়ারা। আর তাতে বাংলাদেশ সাক্ষী হলো অবিস্মরণীয় ও ঐতিহাসিক এক জয়ের।

শনিবার (১৪ জানুয়ারি) অনূর্ধ্ব-১৯ নারী বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বেননিতে অবস্থিত উইলোমুর পার্কে টস হেরে ফিল্ডিংয়ে নেমে শুরুটা দারুণ করেছিল ইয়াং টাইগ্রেসরা। দিশা ও মারুফাদের আঁটসাঁট বোলিংয়ে অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস থেমেছিল ৫ উইকেট হারিয়ে ১৩০ রানে। বাংলাদেশের হয়ে জোড়া উইকেট পেয়েছিলেন অধিনায়ক দিশা বিশ্বাস ও মারুফা আক্তার। এছাড়া একটি উইকেট শিকার করেছেন রাবেয়া খাতুন।

দিশা বিশ্বাসদের আঁটসাঁট বোলিংয়ে অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস থেমেছিল ৫ উইকেট হারিয়ে ১৩০ রানে। হাতের নাগালে থাকা টার্গেট তাড়া করতে নেমে প্রথম বলেই উইকেট হারায় বাংলাদেশ। অজি বোলার মেকেন্নার বলে ‘গোল্ডেন ডাক’ হয়ে ফেরেন মিষ্টি সাহা।

তবে শুরুতে উইকেট হারালেও দারুণভাবে লড়াইয়ে ফেরে বাংলাদেশের কিশোরীরা। আফিয়া ও দিলারা জুটি দলকে এগিয়ে নেন। দারুণ ব্যাটিংয়ে ব্যক্তিগত ফিফটির পথে ছিলেন দিলারা। তবে এইনসওয়ার্থের বলে অ্যালেনের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরতে হয় তাকে। আউট হওয়ার আগে করেছেন ৪২ বলে ৪০ রান।

দিলারার পর বেশিক্ষণ টিকতে পারেনি আফিয়া প্রত্যাশাও। এইনসওয়ার্থের দ্বিতীয় শিকার হওয়ার আগে ২২ বলে ২৪ রান করেন এই ব্যাটার। দারুণ জুটি গড়ে তোলেন স্বর্ণা এবং সুমাইয়া। শেষ ৪ ওভারে ২৫ রানের প্রয়োজন হলে ১৩ বল বাকি থাকতেই তা শেষ করেন তারা দুজন। শেষ পর্যন্ত সুমাইয়া ৪১ এবং স্বর্ণা অপরাজিত ছিলেন ১৩ রানে।

এর আগে টস জিতে ব্যাটিং করতে নামা অস্ট্রেলিয়াকে শুরুতেই চেপে ধরে বাংলাদেশের মেয়েরা। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে পারিস বোডলারকে বোল্ড করেন দিশা। আরেক ওপেনার ক্যাট পেলেকে থিতু হতে দেননি ডানহাতি এই পেসার। দিশার বলে স্বর্ণার হাতে ক্যাচ দিয়ে ৫ রানে ফেরেন ক্যাট। এরপর অবশ্য দারুণ জুটি গড়ে তোলেন ক্লেইর মোর এবং এল্লা হাওয়ার্ড।

দিশার বলে চার মেরে ৪৭ বলে হাফ সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন ক্লেইর। হাফ সেঞ্চুরির পর অবশ্য বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি তিনি। রাবেয়া খাতুনের অফ স্টাম্পের বাইরের বল ড্রাইভ করতে গিয়ে লেকি চাকমার হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন ৫২ রান করা ক্লেইর। থিতুত হতে পারেননি লুচি হ্যামিল্টন।

মারুফা আক্তারের বলে বোল্ড হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন তিনি। একই ওভারে আউট হয়েছেন দারুণ ব্যাটিং করা হাওয়ার্ড। মারুফার বলে লেগ সাইডে খেলতে গিয়ে সুমাইয়ার হাতে ক্যাচ দেন ৩৫ রান করা এই ব্যাটার। শেষ দিকে অ্যামি স্মিথ এবং রেইস ম্যাকেন্না মিলে অস্ট্রেলিয়ার রান ১৩০ এ নিয়ে যান। বাংলাদেশের হয়ে দুটি করে উইকেট নিয়েছেন মারুফা ও দিশা।

গ্রুপ পর্বে বাংলাদেশের অন্য দুই প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা ও যুক্তরাষ্ট্র। ১৬ জানুয়ারি শ্রীলঙ্কা এবং ১৮ জানুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে খেলবে ইয়াং টাইগ্রেসরা। দিনের অপর ম্যাচে স্কটল্যান্ডকে ৬ উইকেটে হারিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত।

১৬ দল নিয়ে এবারই প্রথম মাঠে গড়িয়েছে মেয়েদের অনূর্ধ্ব-১৯ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। অস্ট্রেলিয়া ছাড়াও বাংলাদেশের গ্রুপে (এ) রয়েছে শ্রীলঙ্কা ও যুক্তরাষ্ট্র। চারটি গ্রুপ থেকে মোট ১২টি দল টিকে থাকবে সুপার সিক্স রাউন্ডের জন্য। সুপার সিক্স রাউন্ডকে আবার দুটি গ্রুপে ভাগ করা হয়েছে। এ-গ্রুপের তিন দলের সঙ্গে ডি-গ্রুপের তিন দল নিয়ে গ্রুপ-১। আবার বি-গ্রুপের তিন দলের সঙ্গে সি-গ্রুপের তিন দল মিলে গ্রুপ-২। দুই গ্রুপের শীর্ষ চার দল যাবে সেমিফাইনালে। ২৯শে জানুয়ারি টুর্নামেন্টের ফাইনাল অনুষ্ঠিত হবে।

দৈনিক গোপালগঞ্জ
দৈনিক গোপালগঞ্জ