• সোমবার ১৭ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৩ ১৪৩১

  • || ০৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

দৈনিক গোপালগঞ্জ

উত্তরা থেকে টঙ্গী মেট্রোরেলে হবে নতুন ৫ স্টেশন

দৈনিক গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ২০ মে ২০২৪  

উত্তরা উত্তর থেকে টঙ্গী রেলওয়ে স্টেশন পর্যন্ত নতুন ৫ স্টেশন হবে বলে জানিয়েছেন  ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এমএএন ছিদ্দিক।  এগুলো হলো দিয়াবাড়ী বাজার, সোনারগাঁও জনপদ রোড পূর্ব, পশ্চিম, টঙ্গী বাজার, টঙ্গী রেলওয়ে স্টেশন।

টঙ্গী পর্যন্ত মেট্রোরেল সম্প্রসারণের কথা জানিয়ে এমএএন ছিদ্দিক বলেন রাজধানীর দ্রুতগামী গণপরিবহন হিসেবে জনপ্রিয় মেট্রোরেলের এমআরটি লাইন-৬ বর্তমানে উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত কাজ শেষে যাত্রী চলাচল করছে। এই রুটটিতে বর্তমানে মতিঝিল থেকে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন পর্যন্ত সম্প্রসারণের কাজ চলছে। এ রুটের কাজ শেষ হলে মেট্রোরেল অতিরিক্ত ৫ লাখ যাত্রী বহন করবে।

গতকাল রবিবার রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে মেট্রোরেলের ব্র্যান্ডিং অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, আমাদের এনবিআর মেট্রোরেলে ১৫% ভ্যাট আরোপ করেছে এটা হতে পারে না। রং ডিসিশন। ভারতে মেট্রোরেলে কি ভ্যাট আছে? ভারতে ভ্যাট নেই আমরা কেন করব? আমি প্রধানমন্ত্রীকে জানিয়েছি। তিনি বিষয়টি বিবেচনা করবেন। ভ্যাট বসলে মেট্রোরেলের সুনাম নষ্ট হবে। আমি মন্ত্রণালয়ে বিষয়টি তুলে ধরেছি। প্রধানমন্ত্রী বিষয়টি পুনর্বিবেচনার আশ্বাস দিয়েছেন। তাছাড়া এই  ঢাকা সিটি। যেটি  শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়ন অর্জনে বিশ্বের বিস্ময়।

বহির্বিশ্বের পরিবহনের সঙ্গে তুলনা করে ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, এই শহরে যে বাসগুলো চলে। এখানে এত গরিব বাস। টিভিতে দেখি আফ্রিকায় ছোট ছোট গাড়ি চলে, সেগুলো দেখতে অনেক সুন্দর। অথচ এই শহরের বাসগুলো জরাজীর্ণ। এই জরাজীর্ণ বাস নিয়ে আমরা মিটিং করে বিআরটিএর সঙ্গে কথা বলেও সমাধান করতে পারিনি।  ঢাকার সঙ্গে এসব যায় না। আজ আমাদের বুড়ীগঙ্গা শেষ, কর্ণফুলীও শেষ। আমাদের মেট্রোরেল অনেক সুন্দর, শব্দদূষণ নেই। অথচ পিলারগুলো পোস্টার দিয়ে ভরা। অপরিচ্ছন্ন নোংরা। মেট্রোরেল আমাদের সম্পদ। তাছাড়া, ২০৩০ সালে আমাদের টার্গেট ছিল ৬টি এমআরটি লাইনের কাজ শেষ হবে। ১ ও ৫ এর গ্রাউন্ড ম্যাপিং হয়ে গেছে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ব্রেইনে আজ মেট্রোরেল, এলিভেটেড এক্সপ্রেস। এই বাংলাদেশ নিয়ে তার যে বহুমুখী পরিকল্পনা। এই  ঢাকা তার অবিচ্ছেদ্য অংশ। যারা ইউজার তারা যেন মূল্যবান সম্পদ রক্ষা করেন। তিনি মেয়রের উদ্দেশ্যে বলেন, আমাকে সহযোগিতা করুন। যে বাসগুলো চলে, ভীষণ খারাপ লাগে। এত আধুনিক মেট্রোরেল থেকে নেমে যখন গরিব বাসে, জীর্ণশীর্ণ বাস দেখতে কেমন লাগে। আমাদের মালিকরা কি লজ্জা পান না। তারা কি বিদেশে যান না, দেখেন না।

সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এ বি এম আমিনুল্লাহ নূরীর সভাপতিত্বে এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন  ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি রেজওয়ান আহমেদ তৌফিক প্রমুখ।

দৈনিক গোপালগঞ্জ
দৈনিক গোপালগঞ্জ