• রোববার   ২৩ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ১০ ১৪২৮

  • || ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

দৈনিক গোপালগঞ্জ

নড়াইলে হত্যার দায়ে একজনের মৃত্যুদণ্ড, তিনজনের যাবজ্জীবন

দৈনিক গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ৩০ নভেম্বর ২০২১  

নড়াইল সদর উপজেলার ভবানীপুর গ্রামে কৃষক মফি শেখ হত্যা মামলায় প্রতিবেশী জামিনুর রহমান মোল্যাকে (৩০) মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়া তার ছোট ভাই সাদ্দাম হোসেন শুভ (২৭), তার মামা সাহিদ মোল্যা (৪২) এবং নানা সাত্তার মোল্যাকে (৫৫) যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। আসামিদের প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

আজ মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে জেলা ও দায়রা জজ মুন্সী মো. মশিয়ার রহমান এই আদেশ দেন। রায় ঘোষণার সময় দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা আদালতে উপস্থিত ছিলেন। তাদের সবার বাড়ি ভবানীপুর গ্রামে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৬ সালের ১৮ জুলাই দুপুরে নড়াইলের ভবানীপুর গ্রামের মফি শেখ তার নয় বছরের শিশুপুত্রকে নিয়ে স্কুল থেকে উপবৃত্তির টাকা তুলে বাড়িতে ফিরছিলেন। রাস্তায় মাথাভাঙ্গা ব্রিজের উপর ধারালো অস্ত্র দিয়ে প্রতিবেশী মফি শেখকে হত্যা করেন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা। জমিজমাসংক্রান্ত বিরোধের জেরে এই হত্যাকাণ্ড।

এই ঘটনায় নড়াইল সদর থানায় মামলা করেন নিহতের স্ত্রী রেকসোনা খাতুন। ছয় আসামির মধ্যে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত জামিনুরের মা আবেনুর খাতুন (৫০) ও মামা সাখায়েত হোসেনকে (২৬) খালাস দেওয়া হয়েছে।

নিহতের স্ত্রী রেকসোনা খাতুন ও ভাই সরোয়ার শেখ জানান, তারা এই রায়ে সন্তুষ্ট। তারা আশা করছেন দ্রুত তা কার্যকর হবে।

এদিকে, রায় শুনে আসামিপক্ষের লোকজন কান্নায় ভেঙে পড়েন।

মফি শেখকে হত্যার সময় শিশুপুত্র মিঠু তার সঙ্গেই ছিলেন। বাবাকে নির্মমভাবে হত্যা করায় ভেঙে পড়ে মিঠু। এছাড়া ঘটনার সময় ভুক্তভোগী মফির ১৬ দিন বয়সী নবজাতক মাহিম শেখ বড় হয়ে বাবার মুখ দেখতে পারেনি। মফির স্ত্রী দুই সন্তান নিয়ে অনেক কষ্টে জীবনযাপন করছেন।

দৈনিক গোপালগঞ্জ
দৈনিক গোপালগঞ্জ