• শুক্রবার   ০৯ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২৫ ১৪২৯

  • || ১৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

দৈনিক গোপালগঞ্জ

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে কতটা সহায়ক তেঁতুল

দৈনিক গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ৩১ আগস্ট ২০২২  

ডায়াবেটিস বর্তমানে খুব পরিচিত একটি রোগ। যে শর্করা খাবার থেকে আমরা শক্তি পাই, সেই শর্করা খাবার ভাঙার জন্য খুবই প্রয়োজনীয় হরমোন হলো ইনসুলিন। এটা তৈরি হয় অগ্ন্যাশয় গ্রন্থি থেকে। বিভিন্ন কারণে এই ইনসুলিন তৈরির পরিমাণ কমে গেলে বা পুরোপুরি বন্ধ হয়ে গেলে ডায়াবেটিস হয়।

ডায়াবেটিস রোগের চিকিৎসার প্রধান লক্ষ্য হচ্ছে রক্তের শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে রাখা এবং অন্যান্য জটিলতার সম্ভাবনা কমানো। ইনসুলিন অনির্ভর ডায়াবেটিস রোগে খাদ্যনিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে চিকিৎসাকে প্রাধান্য দেওয়া হয়। অন্যদিকে ইনসুলিন নির্ভর ডায়াবেটিস রোগেও পথ্য একটি বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

টক স্বাদের তেঁতুল ফলটি স্বাস্থ্যের জন্যও বেশ উপকারী। তেঁতুলে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ‘সি’ পাওয়া যায়। এটি অ্যান্টি-অক্সিডেন্টে ভরপুর একটি ফল। এ ছাড়াও এতে ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম, ফসফরাস, ম্যাঙ্গানিজ, আয়রন এবং ফাইবার জাতীয় অনেক উপকারী উপাদান পাওয়া যায়। পুষ্টিগুণে ভরপুর তেঁতুল ত্বক ও চুলের জন্যও উপকারী।

তেঁতুলের আরও যেনব গুণ রয়েছে—

তেঁতুল ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য খুবই উপকারী। এতে এমন ধরনের এনজাইম আছে যা ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করে।

তেঁতুল ফ্যাটমুক্ত একটি ফল। এতে উচ্চ মাত্রায় ফাইবারও পাওয়া যায়। গবেষণায় দেখা গেছে, নিয়মিত তেঁতুল খেলে ওজন কমে। তেঁতুল ক্ষুধা কমিয়ে দেয়। ফলে দ্রুত ওজন কমে।

তেঁতুল কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে।

তেঁতুলে থাকা হাইড্রোক্সিট্রিক অ্যাসিড সরাসরি চর্বি উৎপাদন কমাতে কাজ করে। এর পাশাপাশি এটি হজম প্রক্রিয়া ঠিক রাখতেও সহায়ক।

মুখের দাগ দূর করতেও তেঁতুল বেশ উপকারী। এই ফল আলফ-হাইড্রক্সি অ্যাসিড সমৃদ্ধ। এর উপাদান বেশিরভাগ প্রসাধনী পন্যে ব্যবহৃত হয়। তেঁতুল ত্বককে ভেতর থেকে পরিষ্কার করতে কাজ করে।

তেঁতুলে থাকা ভিটামিন এ চোখের সুরক্ষায় বেশ কার্যকরী। এই ভিটামিন ম্যাকুলার অবক্ষয় এবং বয়স সম্পর্কিত ছানি পড়ার ঝুঁকি কমায়। তেঁতুলে এমন উপাদান রয়েছে যা চোখকে শুষ্ক হওয়া থেকে রক্ষা করে।

দৈনিক গোপালগঞ্জ
দৈনিক গোপালগঞ্জ