• বৃহস্পতিবার   ০৭ জুলাই ২০২২ ||

  • আষাঢ় ২৩ ১৪২৯

  • || ০৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

দৈনিক গোপালগঞ্জ

বিএনপি থেকে পদত্যাগ করলেন সাক্কু

দৈনিক গোপালগঞ্জ

প্রকাশিত: ১৯ মে ২০২২  

কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও সদ্যবিদায়ী সিটি মেয়র মনিরুল হক সাক্কু দল থেকে পদত্যাগ করেছেন। আজ বৃহস্পতিবার (১৯ মে) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সাক্কুর ব্যক্তিগত সহকারী মো. কবির হোসেন মজুমদার। প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে মনিরুল হক সাক্কু বলেন, আজ আমার মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। বিএনপির কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে আমি কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম-সম্পাদক সাধারণ সম্পাদক থেকে পদত্যাগ করেছি। পদত্যাগপত্রটি দক্ষিণ জেলা বিএনপির সভাপতি রাবেয়া চৌধুরীর হাতে পোঁছানো হয়েছে। যার অনুলিপি কেন্দ্রীয় মহাসচিব ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মহোদয় বরাবর পাঠানো হয়।

তিনি আরও বলেন, আমি কুমিল্লা পৌরসভার সর্বশেষ চেয়ারম্যান ও সর্বশেষ মেয়রের দায়িত্ব পালন করেছি। ২০১১ সালে কুমিল্লা পৌরসভা কুমিল্লা সিটি করপোরেশনে রূপান্তরিত হয়। ২০১২ সালের প্রথম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আমি সিটি করপোরেশনের প্রথম মেয়র নির্বাচিত হই এবং ২০১৭ সালে বিএনপির দলীয় প্রতীক ধানের শীষের প্রার্থী হয়ে দ্বিতীয় বার নির্বাচিত হই। আপনারা জানেন কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের তৃতীয় নির্বাচন আগামী ১৫ জুন। আমার দল বিএনপি একটি যৌক্তিক দাবির প্রেক্ষাপটে বর্তমান সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। আমার দলের এই সিদ্ধান্তের সঙ্গে আমি সম্পূর্ণ একমত। কিন্তু আমার তৃণমূলের নেতাকর্মী, সমর্থক ও নগরবাসীর অনুরোধে আমাকে বাধ্য হয়ে আসন্ন সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে হচ্ছে। আমি আমার দলীয় পদবি ধারণ করে সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অংশগ্রহণ করলে আমার প্রিয় দল (বিএনপি) বিতর্কিত হবে বলে আমি বিশ্বাস করি। তাই দলীয় ভাবমূর্তি অক্ষুণ্ন রাখার স্বার্থে আমি কুমিল্লা (দঃ) জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করছি।

কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) নির্বাচনে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ে ১৫৪ প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। এতে ৬ মেয়র প্রার্থী, ১১১ জন সাধারণ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর এবং ৩৭ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করা হয়।বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টা থেকে বিকাল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত নগরীর শিল্পকলা একাডেমিতে এ যাচাই-বাছাই কার্যক্রম পরিচালিত হয়। দিনভর যাচাই-বাছাই শেষে বিকালে রিটার্নিং কর্মকর্তা শাহেদুন্নবী চৌধুরী বৈধ প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেন। এর আগে গত ১৭ মে মনোনয়নপত্র জমা দেন মেয়র এবং কাউন্সিলর প্রার্থীরা। ওই দিন ছয় মেয়র প্রার্থীসহ মোট ১৬৪ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। এর মধ্যে ১২০ জন সাধারণ কাউন্সিলর এবং ৩৮ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর ছিলেন।

মেয়র পদে বৈধ প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত, সদ্যবিদায়ী মেয়র মনিরুল হক সাক্কু (স্বতন্ত্র), বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক উপকমিটির সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের প্রয়াত নেতা অধ্যক্ষ আফজাল খানের ছেলে মাসুদ পারভেজ খান ইমরান (স্বতন্ত্র), নিজাম উদ্দিন কায়সার (স্বতন্ত্র), ইসলামী আন্দোলনের রাশেদুল ইসলাম, নাগরিক কমিটির কামরুল আহসান বাবুল (স্বতন্ত্র)। এর আগে সকালে তথ্যগত ভুলের কারণে মাসুদ পারভেজ খান ইমরানের মনোনয়নপত্র স্থগিত রাখা হয়। পরে সেটি পূরণ করা হলে বিকালে তার মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়।

দৈনিক গোপালগঞ্জ
দৈনিক গোপালগঞ্জ